রবিবার, ২৬শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

NewsFile Institute
Home / Big Picture Stories  / অসমে আন্তঃজেলা যাতায়াত ১৬ অগাস্ট থেকে খুলতে পারে, ইঙ্গিত মুখ্যমন্ত্রীর

অসমে আন্তঃজেলা যাতায়াত ১৬ অগাস্ট থেকে খুলতে পারে, ইঙ্গিত মুখ্যমন্ত্রীর

দীর্ঘদিন ধরে আন্তঃজেলা যাতায়াত বন্ধ থাকায় বর্তমানে রাজ্যের অর্থনৈতিক পরিস্থিতি মারাত্মক ধাক্কা খেয়েছে।

মিঠুলাল চৌধুরী

অসমে করোনা পরিস্থিতির অবনতি হওয়ায় ২১ মে থেকে আন্তঃজেলা যাতায়াতে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছিল। প্রায় ৩ মাস বন্ধ থাকার পর আগামী ১৬ অগাস্ট থেকে রাজ্যে আন্তঃজেলা যাতায়াত উঠতে চলেছে। সোমবার একথা জানিয়েছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী হিমন্তবিশ্ব শর্মা। অসমে বর্তমানে করোনা পরিস্থিতি ধীরে ধীরে উন্নতি হচ্ছে। এজন্যে ১৬ অগাস্ট থেকে এই নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের কথা রাজ্য সরকারের ভাবনায় রয়েছে বলে মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন।


দীর্ঘদিন ধরে আন্তঃজেলা যাতায়াত বন্ধ থাকায় বর্তমানে রাজ্যের অর্থনৈতিক পরিস্থিতি মারাত্মক ধাক্কা খেয়েছে। ফলে গত কিছুদিন ধরেই সরকারের উপর চাপ সৃষ্টি হচ্ছিল যত দ্রুত সম্ভব যাতে আন্তঃজেলা যাতায়াতে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করা হয়। যদিও এখনও উজান অসমের কয়েকটি জেলায় করোনা সংক্রমণের গ্রাফ যথেষ্ট উদ্বেগজনক। যদি আন্তঃজেলা যাতায়াতে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করে নেওয়া হয় তবে সংক্রমণ সেখান থেকে অন্যান্য জেলায় ফের ছড়িয়ে পড়তে পারে। কিন্তু রাজ্যের আর্থিক হাল যে ভাবে খারাপের দিকে যাচ্ছে তাতে ঝুঁকি না নিয়ে আর কোনও উপায় নেই রাজ্য সরকারের ।


অসমে সোমবার নতুন নির্দেশিকা জারি হয়েছে। মুখ্যমন্ত্রী জানান , রাজ্যের ২টি জেলা ছাড়া সবকটি জেলাতেই করোনা কার্ফু বিকেল পর্যন্ত প্রত্যাহার করে নেওয়া হবে। আগামী সোমবার পরিস্থিতি পর্যালোচনা করে করোনা কার্ফুর সময়সীমা সন্ধ্যা ৬টা থেকে ভোর ৫টা করা হতে পারে। মুখ্যমন্ত্রী এদিন রাজ্যে স্কুল , কলেজে পড়াশুনা শুরু করা নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ ঘোষণা করেছেন। তিনি বলেন , ছেলে, মেয়ে এবং শিক্ষক, শিক্ষকাদের জীবনের নিরাপত্তা আমাদের কাছে খুবই গুরুত্বপূর্ণ। তবে যেহেতু পরিস্থিতির কিছুটা উন্নতি হয়েছে তাই স্কুল থেকে বিশ্ববিদ্যালয় পর্যন্ত সব ফাইনাল বর্ষের ক্লাসগুলি ১ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু করা যায় কিনা , তা নিয়ে সরকার চিন্তা ভাবনা করে দেখছে। নতুন নির্দেশিকা অনুযায়ী গোটা রাজ্যে ২৪ ঘন্টা কার্ফু প্রত্যাহার করে নেওয়া হয়েছে। গোলাঘাট ও লখিমপুর জেলায় সংক্রমণ এখনও কিছুটা বেশি। তাই ওই ২ জেলাতে দুপুর ২টো থেকে ভোর ৫টা পর্যন্ত করোনা কার্ফু জারি রাখা হয়েছে। বাকি গোটা রাজ্যের জেলাগুলিতে করোনা কার্ফুর সময়সীমা আগের মতোই সন্ধ্যা ৫টা থেকে ভোর ৫টা পর্যন্ত জারি থাকবে।