বৃহস্পতিবার, ৫ই আগস্ট, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

NewsFile Institute
Home / Big Picture Stories  / ভারতে ২০ লক্ষ অ্যাকাউন্ট নিষিদ্ধ করল হোয়াটসঅ্যাপ

ভারতে ২০ লক্ষ অ্যাকাউন্ট নিষিদ্ধ করল হোয়াটসঅ্যাপ

নতুন তথ্যপ্রযুক্তি আইন চালু হওয়ার পর ভারতে ফেসবুক, টুইটার ও হোয়াটসঅ্যাপের মতো সংস্থাগুলির সাথে ভারত সরকারের ব্যাপক মতবিরোধ হয়েছে।

মিঠুলাল চৌধুরী

সোশ্যাল মিডিয়ার অপব্যবহার ও ইউজারদের ক্ষতিকারক আচরণ রুখতে কড়া পদক্ষেপ গ্রহণ করল হোয়াটসঅ্যাপ। ভারতের নতুন তথ্যপ্রযুক্তি আইন মেনে ২০ লক্ষেরও বেশি ভারতীয়র অ্যাকাউন্ট বন্ধ করল ফেসবুকের মালিকানাধীন সোশ্যাল ম্যাসেজিং অ্যাপটি। গত ১৫ মে থেকে ১৫ জুনের মধ্যে এই অ্যাকাউন্টগুলি বন্ধ করা হয়। নিজেদের প্রথম গাইডলাইন রিপোর্ট প্রকাশ করে একথা জানিয়েছে হোয়াটসঅ্যাপ কর্তৃপক্ষ। সম্প্রতি ভারতে জারি করা হয়েছে নতুন তথ্যপ্রযুক্তি আইন । হোয়াটসঅ্যাপ, ফেসবুকের মতো সোশ্যাল মিডিয়া কর্তৃপক্ষ ভারতের নতুন আইনে প্রাথমিকভাবে রাজি না হলেও পরবর্তীতে তাঁরা রাজি হয়ে যায়। সেই আইন মেনেই নতুন এই গাইডলাইন রিপোর্ট প্রকাশ করেছে হোয়াটসঅ্যাপ। তাতে বলা হয়েছে, মূলত তিনটি প্রক্রিয়া মেনে স্বতঃপ্রণোদিতভাবে এই অ্যাকাউন্টগুলো ব্লক করা হয়েছে। সংস্হাটি জানিয়েছে, এই সময়ের মধ্যে হোয়াটসঅ্যাপ কর্তৃপক্ষের কাছে ইউজারদের কাছ থেকে ৩৪৫টি আবেদন জমা পড়েছিল। তার মধ্য থেকে ৬৩টি ক্ষেত্রে সংস্থা পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে।


উল্লেখ্য, নতুন তথ্যপ্রযুক্তি আইন চালু হওয়ার পর ভারতে ফেসবুক, টুইটার ও হোয়াটসঅ্যাপের মতো সংস্থাগুলির সাথে ভারত সরকারের ব্যাপক মতবিরোধ হয়েছে। তবে কেন্দ্রিয় সরকার পরিস্কার জানিয়ে দেয়, জাতীয় সুরক্ষাকে সবার উপর রেখে ভারতের আইন মেনেই এদেশে ব্যবসা করতে পারবে সংস্থাগুলি। এর অন্যথা হলে নতুন আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেবে কেন্দ্র সরকার। প্রথমদিকে দেশের আইন এবং সরকারের কড়া নির্দেশিকা মানতে অস্বীকার করলেও চাপের মুখে পড়ে ফেসবুক, টুইটার এবং হোয়াটসঅ্যাপের মতো সংস্থাগুলি তাদের নীতিতে বদল করতে শুরু করে। কেন্দ্রের নতুন তথ্যপ্রযুক্তি আইনে বলা হয়েছে, ৫০ লক্ষের বেশি গ্রাহক রয়েছেন এরকম সোশ্যাল প্ল্যাটফর্মগুলোকে প্রতিমাসে কমপ্লায়েন্স রিপোর্ট পেশ করতে হবে। এবং সেই সাথে তাদের কাছে কত অভিযোগ জমা পড়েছে এবং তার পরিপ্রেক্ষিতে কী ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে তাও জানাতে হবে। এইজন্য হোয়াটসঅ্যাপ এই রিপোর্ট প্রকাশ করেছে।