রবিবার, ২৫শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

NewsFile Institute
Home / Big Picture Stories  / অভিনেত্রী সুলেখা সিক্রির মৃত্যু ও কিছু কথা

অভিনেত্রী সুলেখা সিক্রির মৃত্যু ও কিছু কথা

প্রথম অভিনয় শুরু হয় ১৯৭৮ ইংরেজির "কিসসা কুর্সী কা" র পার্শ্ব চরিত্রের আই অভিনয় করে।

আশুতোষ দাস

বিশ্বায়নের যুগে কর্মব্যস্ততার শেষে বাড়িতে এসে টেলিভিশন খুলে প্রোগ্রাম দেখবে না সে কি হয়? বাড়ির গৃহবধূ থেকে ছেলে মেয়ে সবাই টেলিভিশনের মোহে আচ্ছন্ন সবাই । তাই টেলিভিশন শিল্পীর অভিনয়ের মুখ তাদের খুব চেনা একেবারে যেন কাছের মানুষ, তাদের ঘর গৃহস্থ ও 1হাঁড়ির সবকিছুই এখন দর্শক জানে ও জানতে কৌতুহলী। তাই বলিউডের বর্ষিয়ান অভিনেত্রী সুলেখা সিক্রির অভিনয়ের উত্থান, বিকাশ ও রোগাক্রান্ত খবর ও তারা অল্প বিস্তর সবাই জানে। উল্লেখ্য ২০০০ এর বেশি এপিসোড এ বিনোদনের অভিনয়ের কৃতিত্ব রয়েছে সুলেখা সিক্রির। টেলিভিশন পর্দায় কিংবদন্তি শিল্পী হয়ে রয়েছেন হিন্দি সিরিয়াল “বালিকা বধূ”র দাদীর অভিনয়ের জন্য।সেই ধারাবাহিক থেকে দর্শক তাকে খুব বেশি আপন করে নিয়েছে। শিল্পীর জন্ম হয়েছিলো ১৯৪৫ ইংরেজির ১৯ এপ্রিল এবং সেখানেই তিনি পড়াশোনা সমাপ্ত করে অভিনয়ের জগতে চলে আসেন।উল্লেখ্য, সুলেখা সিক্রি মঞ্চ,সিনেমা ও সিরিয়াল সব মাধ্যমেই অভিনয় করতেন। সুলেখা সিক্রির পিতা এয়ারফোর্সে কাজ করতেন।


প্রথম অভিনয় শুরু হয় ১৯৭৮ ইংরেজির “কিসসা কুর্সী কা” র পার্শ্ব চরিত্রের আই অভিনয় করে। এর পর “তুমসে নেহি দেখা “পরপুরুষ”, ইত্যাদি অনেক ,ফিল্মে ও তাকে দেখা যায়। ১৯৫৪ই অভিনেত্রী ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির অভিনয় চলাকালেই হেমন্তেরাগে সঙ্গে “টমাস “ফিল্ম দেখা ও ঘনিষ্টতা পরবর্তী সময়ে বিবাহ বন্ধনে তারা আবদ্ধ হন।অন্যান্য অভিনেত্রীদের মতো শৃঙ্খলাবিহীন উশৃঙ্খল জীবন ছিলোনা বলে সবার কাছে শ্রদ্ধার পাত্রী ছিলেন তিনি । সেই অসামান্য প্রতিভা ময়ী অসংখ্য পুরস্কার ও সম্মাননা প্রাপক বর্ষিয়ান ৭৫ বছরের অভিনেত্রী সুলেখা সিক্রির আজ হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু ঘটে।যেন প্রত্যেক দর্শকের আত্মীয় পরিজন বিয়োগের মতো হয়েছে। রবীন্দ্রনাথের সেই কবিতা যেন সুলেখা সিক্তির বেলায় প্রযোজ্য/ ” যাহার অমর স্থান প্রেমের আসনে। /ক্ষতি তার ক্ষতি নয় মৃত্যুর শাসনে। /,দেশের মাটির থেকে নিল যারে হরি/দেশের হৃদয় তারে রাখিয়াছে বরি।