শনিবার, ২৪শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

NewsFile Institute
Home / Big Picture Stories  / করোনাকালে ঐতিহ্যবাহী রথযাত্রায় নেই সেই ‘মহাধুমধাম’

করোনাকালে ঐতিহ্যবাহী রথযাত্রায় নেই সেই ‘মহাধুমধাম’

হিন্দুদের অন্যতম প্রধান উৎসব রথ, আষাঢ় মাসের শুক্লপক্ষের দ্বিতীয়া তিথিতে ওড়িশার পুরী শহরে এই উৎসব হয়।

আশুতোষ দাস

ভারতীয় সংস্কৃতি ও ভারতের সকল প্রকার মানুষের কাছে জগন্নাথের রথযাত্রার গ্রহণযোগ্যতা রয়েছে। রথযাত্রার দিনে গৃহপ্রবেশ, সিনেমা ও যাত্রার মহরত হতো । কবি ও লেখকেরদের বই প্রকাশ ইত্যাদি শুভকাজও ওইদিন হয়ে থাকে। তাই জনগনের কাছে সমাদৃত হওয়ার কারণে, রথযাত্রায় লোকসমাগম খুব বেশি হয়ে থাকে । ধর্মীয় নানান প্রতিষ্ঠান জগন্নাথের রথের আয়োজন ওইদিন করে থাকে। ভক্তরা জগন্নাথের রশিটানার জন্য সারাবছর থেকে ওইদিনের অপেক্ষায় অনেকেই থাকেন । জগন্নাথের দর্শনের জন্য জড়ো হয় অসংখ্য মানুষ। কিন্তু এবার করোনা মহামারির জন্য পুরীর জগন্নাথ মন্দিরের পুরোহিতরা একটা অনিশ্চয়তার ভাবনায় পড়ে গেছেন। রথযাত্রা হবে তবে কিভাবে হবে তাদের অনেক ভাবতে হচ্ছে। সরকারি বিধি নিষেধ ও স্বাস্থ্য বিধি মেনে করতে হবে, কিন্তু তা কি সত্যই সম্ভব! রয়েছে সর্বোচ্চ আদালতের ফরমান। আবার ভারতের অনেক মঠ, আখড়া কেবল বিধিবদ্ধ পুজো করবে জগন্নাথের কিন্তু রথটানা হয়তো তাদের হবেনা। তারা বিরত থাকছেন এবার রথটানা থেকে ।

এবার জগন্নাথে রথের প্রেক্ষিতে একটু আলোচনা করা যাক। ভারতের ইতিহাসে ও হিন্দুপুরানে রথের ব্যবহার আমরা বারবার নানাভাবে দেখি। পৃথিবীর সকল কাব্য সাহিত্যে ও রথ নিয়ে অনেক কথা রয়েছে। আধুনিক যুগের অত্যাধুনিক যানবাহন আবিস্কৃত হওয়ার আগে পর্যন্ত রথের ব্যবহার ছিল সর্বাধিক। রথ তাই এখনও আলোচিত শব্দ। ভারতে জগন্নাথের রথ নিয়ে নানা গল্প গাথা রয়েছে। লোকপুরাণে রথের নানা ব্যবহার আমরা পাই। বিত্তবান লোকরাও যুদ্ধে রথে চড়ে যেতেন। মহারথীরাও রথে চড়ে দূরে যাওয়ার কত রোমাঞ্চকর ঘটনাই ইতিহাসে পাওয়া যায়। রথযাত্রায় তিনটি রথে চড়ে জগন্নাথ, সুভদ্রা, বলভদ্র মাসীর বাড়ি যাওয়ার কথাই প্রাধান্য পায়। রথযাত্রার কথা এলে জগন্নাথের প্রসঙ্গ আসবে, আর সেই প্রসঙ্গ এলে শ্রীকৃষ্ণ, বলরাম ও সুভদ্রার কথা উঠে আসবেই। মাসির বাড়ি বলভদ্র, জগন্নাথ ও সুভদ্রাকে নিয়ে যাচ্ছেন। এইসময় লক্ষ্ণী জগন্নাথ মন্দিরে একা রয়েছেন। কিছুটা অভিমান করেছেন জগন্নাথের প্রতি। লোক পুরানে আছে গুন্ডিচা মন্দিরে ত্রিদেবের প্রতিষ্ঠা করে ভক্তরা পুজো পার্বণ চালানোর অনেক কিংবদন্তি গল্প পাওয়া যায়, বিশেষত চতুর্থ দিনে পঞ্চমী তিথিকে বলে হীরা পঞ্চমী এইদিন জগন্নাথের পুজোর বিশেষ গুরুত্ব রয়েছে। রথযাত্রার নানা অনুষ্ঠান সাতদিন চলে। শতাব্দী পুরনো অনুষ্ঠান ও পুজো আদি এইভাবেই চলে আসছে। জগন্নাথ হচ্ছেন পালনকর্তা নারায়ণের অন্য এক রূপ।

পুরীতে গুন্ডিচা মন্দিরে তিনটি দেব স্থাপন করা হয় এর প্রেক্ষিতে কিছু ঘটনা। হিন্দুদের অন্যতম প্রধান উৎসব রথ, আষাঢ় মাসের শুক্লপক্ষের দ্বিতীয়া তিথিতে ওড়িশার পুরী শহরে এই উৎসব হয়। এইভাবে পৃথিবীর অনেক জায়গায় ছড়িয়ে রয়েছে রথযাত্রা । সেই অনুসারে এবার রথযাত্রার দিন হচ্ছে শুক্লপক্ষের দ্বিতীয়া তিথি, ২৭ আষাঢ়, ইংরেজি ১২ জুন জগন্নাথদেবের রথযাত্রা। করোনার অতিমারিতে নিশ্চয়ই ভাটা পড়বে সেই মহাধুমধামে।