শনিবার, ৩১শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

NewsFile Institute
Home / Big Picture Stories  / অসমে কিছু সরকারি প্রকল্পেই জনসংখ্যা নীতি : মুখ্যমন্ত্রী

অসমে কিছু সরকারি প্রকল্পেই জনসংখ্যা নীতি : মুখ্যমন্ত্রী

এবার সরকারি প্রকল্প রূপায়ণেও জনসংখ্যা নীতি কার্যকরী হতে যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্ব শর্মা।

মিঠুলাল চৌধুরী

অধিক সন্তান হলে মিলবে না সরকারি সুবিধা। জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণে ২ সন্তানের নীতি আগেই চালু রয়েছে রাজ্যে। তবে সরকারি চাকরি ও পঞ্চায়েত এবং পুরভোটেই আপাতত কার্যকর হচ্ছে জনসংখ্যা নীতি। কিন্তু এবার সরকারি প্রকল্প রূপায়ণেও জনসংখ্যা নীতি কার্যকরী হতে যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্ব শর্মা। কিন্তু সেই নীতি কার্যকরী হবে না চা উপজাতি সম্প্রদায় ও তফশিলি জাতি উপজাতির ক্ষেত্রে। সেটা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে কংগ্রেস ও এআইইউডিএফ। বিরোধীরা দাবি করছেন, জনসংখ্যা নীতি কার্যকর করতে জাতি ও জনগোষ্ঠীর মধ্যে বিভাজন কেন করা হচ্ছে। এছাড়া এর জন্য এক ভিত্তিবর্ষও ঠিক করা প্রয়োজন। কিন্তু সরকারি প্রকল্প রূপায়ণে জনসংখ্যা নীতি কার্যকর করার কথা মুখ্যমন্ত্রী বলছেন। তবে সব প্রকল্প নয়, বাছাই করা কিছু প্রকল্পে জনসংখ্যা নীতি প্রযোজ্য করার কথা তিনি জানিয়েছেন। শনিবার মুখ্যমন্ত্রী বলেন, সরকারি প্রকল্পে জনসংখ্যার কথা আসবেই। তবে ২ সন্তানের নীতি সব প্রকল্পে কার্যকরী হবে না। স্কুলে বিনামূল্যে ভর্তি এসবে হবে না ২ সন্তানের নীতি। প্রধানমন্ত্রীর আবাস যোজনা সবাই পাবেন। কিন্ত মধ্যবিত্তদের জন্য মুখ্যমন্ত্রী আবাস যোজনা চালু করা হলে জনসংখ্যা নীতি আসবে। তাই সব সরকারি প্রকল্পে নয়, বাছাই করা কিছু প্রকল্পে সেই নীতি কার্যকর করা হবে। উল্লেখ্য, বিধানসভা ভোটের পর থেকেই শাসক দলের ভিতরে শোনা যাচ্ছে, ধর্মীয় সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের লোকরা পুরোদমে সরকারি প্রকল্পের সুবিধা নেন। কিন্তু বিজেপিকে ভোট দেন না। বিভিন্ন এলাকায় রাস্তাঘাট ও অরুণোদয় সহ সব সরকারি প্রকল্প রূপায়িত হয়েছে। তবুও ভোট পায়নি বিজেপি। উন্নয়ন হলে ভোট পাওয়া উচিত। কিন্তু অসমে ভোট পেতে হলে কোনও জাতি সম্প্রদায়ের লোক হতে হবে। তাই সরকারি প্রকল্পে জনসংখ্যা নীতি কার্যকর করার সরকারি সিদ্ধান্ত কাদের জন্য, সেটা না বললেও চলে।