বৃহস্পতিবার, ৫ই আগস্ট, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

NewsFile Institute
Home / Big Picture Stories  / ঘাটতির মধ্যেই দেশজুড়ে চলছে ভ্যাকসিনের অপচয়

ঘাটতির মধ্যেই দেশজুড়ে চলছে ভ্যাকসিনের অপচয়

কেন্দ্র সরকার বারবারই রাজ্যগুলোকে বলছে, ভ্যাকসিন নষ্টের পরিমাণ যেন ১ শতাংশের নিচে থাকে।

মিঠুলাল চৌধুরী

দেশজুড়ে ভ্যাকসিনের সঙ্কট। দেশের অনেক রাজ্যেই ভ্যাকসিনের অভাবে ১৮ থেকে ৪৪ বছর বয়সিদের ভ্যাকসিনেশন শুরুই করা যায়নি। অনেক জায়গায় আবার শুরুর পর বন্ধ করে দিতে হয়েছে ভ্যাকসিনেশন। এমনকি ৪৫ ঊর্ধ্বদের অনেকেই ভ্যাকসিন পাচ্ছেন না। অথচ এসবের মধ্যেও ভারতে প্রায় ৬.৩ শতাংশ ভ্যাকসিন নষ্ট হয়েছে কোন না কোন কারণে। এই বিপুল পরিমাণ ভ্যাকসিন ব্যবহার করা যায়নি । যা নিয়ে একাধিক রাজ্যের উপর ক্ষুদ্ধ কেন্দ্রিয় সরকার। এদিকে কয়েকদিন আগে কেন্দ্রিয় সরকারের তরফে দাবি করা হয়, ২০২১ সনের শেষে পরিস্থিতি বদলে যাবে। কারণ কেন্দ্রের নিকট ভ্যাকসিনের ২০০ কোটিরও বেশি ডোজ মজুত থাকবে। তখন আর দেশে ভ্যাকসিনের আকাল থাকবে না।
রাজ্যগুলোর মধ্যে সবথেকে বেশি ভ্যাকসিন নষ্ট হয়েছে ঝাড়খণ্ডে। সে রাজ্যে নাকি ৩৭.৩ শতাংশ ভ্যাকসিন নষ্ট হয়েছে। ছত্তীসগড়ে ৩০ শতাংশেরও বেশি এখন পর্যন্ত ভ্যাকসিন নষ্ট হয়েছে । এদিকে তামিলনাড়ুতে ভ্যাকসিন অপচয় হয়েছে ১৫.৫ শতাংশ। জম্মু – কাশ্মীরে ১০.৮ শতাংশ ভ্যাকসিন নষ্ট হয়েছে। মধ্য প্রদেশে নষ্ট হয়েছে ১০.৭ শতাংশ ভ্যাকসিন। এদিকে দেশে গড় ভ্যাকসিন অপচয়ের হার ৬.৩ শতাংশ।
কেন্দ্র সরকার বারবারই রাজ্যগুলোকে বলছে, ভ্যাকসিন নষ্টের পরিমাণ যেন ১ শতাংশের নিচে থাকে। কিন্ত বাস্তবে রাজ্যগুলোতে সেই ছবি সম্পূর্ণ ভিন্ন। মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ভ্যাকসিন নষ্টের প্রসঙ্গটি তুলে ধরেন। সেইসঙ্গে প্রতিটি রাজ্যকে তিনি পরামর্শ দিয়েছিলেন ভ্যাকসিন নষ্ট যাতে না হয় সেই পথ খুঁজে বের করতে। কিন্ত তার পরেও দেখা যাচ্ছে রাজ্যগুলোতে ভ্যাকসিন নষ্টের হার বাড়ছে। এমন পরিস্থিতিতে ভ্যাকসিন নষ্টের যে ছবি কেন্দ্র তুলে ধরেছে, তা নিয়ে ইতিমধ্যেই দেশে ব্যাপক চর্চা শুরু হয়ে গিয়েছে।