মঙ্গলবার, ২৭শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

NewsFile Institute
Home / Big Picture Stories  / মুখ্যমন্ত্রীর সিন্ডিকেট বিরোধী অবস্থান উপেক্ষা করে দেড়শতাধিক কয়লা বোঝাই গাড়ি বাংলাদেশে পাচার

মুখ্যমন্ত্রীর সিন্ডিকেট বিরোধী অবস্থান উপেক্ষা করে দেড়শতাধিক কয়লা বোঝাই গাড়ি বাংলাদেশে পাচার

একটি ট্রাকে ৮ টন কয়লা যাওয়ার কথা থাকলেও যাচ্ছে ৩২ থেকে ৪০ টন । তবে বেশ কিছু দিন মুখ্যমন্ত্রীর ফরমানে আটকা পড়লেও অবশেষে বৃহস্পতিবার রাজ্য সরকারকে অন্ধকারে রেখে কার নির্দেশে কয়লা পাথরের ট্রাক বাংলাদেশে পাড়ি

অরুপ রায় 
করিমগঞ্জ, মে ২৯,

দুর্নীতি মুক্ত অসমের বাণী দিয়ে রাজ্যে ক্ষমতায় এসেছিলেন সর্বানন্দ সোনোয়াল কিন্তু তাঁর পাঁচ বছর কার্যকালে দুর্নীতির সঙ্গে যুক্ত বেশ কিছু লোক জেলে গিয়েছিলেন তবু দুর্নীতিমুক্ত হয়নি অসম । এবার অসমের নতুন মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্ব শর্মা শপথ গ্রহণ করার দুদিন পর রাজ্য পুলিশ প্রধান ভাস্কর জ্যোতি মহন্ত কে নির্দেশ দিয়েছিলেন সিন্ডিকেট বন্ধ হতে হবে । নাগরিকদের অনুরোধ আপনারা যদি কেউ অসমের কোথাও সিন্ডিকেটের আবাস পান তা হলে পুলিশ প্রধানকে খবর দেন তারপর দেখবেন কি হয় । অসমের মুখ্যমন্ত্রীর কথা এখানেই সীমিত ছিল।মুখ্যমন্ত্রী শর্মা সিন্ডেকেটরাজ বন্ধ করার হুমকির বেশিদিন অতিক্রম করার আগেই করিমগঞ্জের কয়লা,পাথর মাফিয়ারা মুখ্যমন্ত্রী কে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে একদিনে ১৫০ থেকেও অধিক কয়লা বোঝাই ট্রাক বাংলাদেশে রফতানি করা হয় । একটি ট্রাকে ৮ টন কয়লা যাওয়ার কথা থাকলেও যাচ্ছে ৩২ থেকে ৪০ টন । তবে বেশ কিছু দিন মুখ্যমন্ত্রীর ফরমানে আটকা পড়লেও অবশেষে বৃহস্পতিবার রাজ্য সরকারকে অন্ধকারে রেখে কার নির্দেশে কয়লা পাথরের ট্রাক বাংলাদেশে পাড়ি দিলো এনিয়ে সবাই ধন্দে আছেন। মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশ অমান্য করে কয়লা রপ্তানিতে প্ৰমাণ হয়ে যায় সীমান্ত জেলা করিমগঞ্জে কয়লা  মাফিয়াদের কথাই শেষ কথা এখানে মুখ্যমন্ত্রীর কোন হুকুম কাজে লাগবে না । কয়লা পাথর মাফিয়ারা শুধু মুখ্যমন্ত্রীকে তোয়াক্কা করে এমন নয় তারা পরোক্ষভাবে সংবাদ মাধ্যমকে মামলা করার প্রকাশ্য হুমকি দিয়ে যাচ্ছে। এদিকে মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্ব শর্মার নির্দেশ অমান্য করে কয়লা রফতানি হলো । এ প্রসঙ্গে উত্তর করিমগঞ্জের বিধায়ক কমলাক্ষ বলেন মুখ্যমন্ত্রী সিন্ডিকেটের বিরুদ্ধে হুমকি দিয়েই উনার কাজ শেষ করেছেন কিন্তু উনার হুকুম টিকমত পালন হচ্ছে কি না তা জানার জন্য যাকে দায়িত্ব দেওয়া হয় সেই ব্যক্তিরা কি করছে তা কে দেখবে ? কয়লা সহ নানা অবৈধ ব্যবসা  আমলাদের  সাথে গোপন বুজাবুজির মারফত হচ্ছে বলে গুরুত্বর অভিযোগ করেছেন উত্তর করিমগঞ্জের বিধায়ক ।বিধায়ক বলেন, করিমগঞ্জে  মাফিয়াচক্র অব্যাহত রেখেছে কয়লা সিন্ডিকেট।শাসক দলের একাংশ এই কালো হিরে পাচারে যুক্ত যার জন্য তারা কয়লা পাথর কেলেঙ্কারি নিয়ে কিছু বলার সাহস পাচ্ছেন না  ।মূলত এই একুশের নির্বাচনে বরাক উপত্যকায়  অন্যতম এক ইস্যু ছিলো এই অঞ্চলে চলে থাকা  কয়লা,পাথর, বার্মিজ সুপারি আর সারের পাচার সিন্ডিকেট । অবশ্য এইবার এই কালো হীরে পাচার  বা বরাকে বর্তমানে বহুচর্চিত সিন্ডিকেট শব্দটা  নিয়ে বিজেপির টিকিট থেকে বঞ্চিত দিলীপ পাল আবার দিসপুর যাওয়ার স্বপ্ন  সিন্ডিকেটের   জড়িতরাই আটকাতে পেরেছে বলে খোদ দিলীপ পালই দাবি করছেন বলে অভিযোগ করেন বিধায়ক কমলাক্ষ। তিনি বলেন, মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্ব শর্মার সিন্ডিকেট বিষয়ে আলোচনার পর থেকেই রাতের ঘুম হরণ করেছে সিন্ডিকেট  মাফিয়াদের । সিন্ডিকেটের সাথে জড়িতরা গুয়াহাটিতে গিয়ে কি মন্ত্র দিয়ে এলেন যা সেখান থেকে আসার পর দিন কয়েকের মধ্যে কয়লা করিমগঞ্জ থেকে বাংলাদেশে পাড়ি দিলো, প্রশ্ন বিধায়কের।এদিকে ভারত বাংলাদেশ সীমান্ত সুতারকান্দিতে কয়েকশো কয়লা ভর্তি ট্রাক বাংলাদেশ পাচারের জন্য লাইনে দাঁড়িয়ে আছে এখবর পেয়ে  নাটকীয়ভাবে জিএসটি বিভাগের কর্মচারিদের দেখা গেছে সুতারকান্দি শুল্ক বিভাগের কার্যালয়ে। অবশ্য বিভাগীয় কর্মচারিরা সাংবাদিকের এড়িয়ে যান।এমনকি করিমগঞ্জ পুলিশও এই বিষয়ে মন্তব্য করতে বিরত থাকে।তবে সব কিছুর মধ্যে কয়লা বাংলাদেশে পাচার করতে সক্ষম হয় কয়লা সিন্ডিকেট মাফিয়ারা ।এদিকে আগামী দিন কয়েকের মধ্যে  করিমগঞ্জের সামাজিক কর্মকর্তাদের এক প্রতিনিধি দল মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করে জেলার নানা সমস্যা নিয়ে আলোচনা করার সঙ্গে সঙ্গে সিন্ডিকেটের বিষয় নিয়ে সরব হবেন বলে জানা গেছে।তারা কয়লা, পাথর নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর বিশেষ তদন্তের দাবি করবেন । যদি উপযুক্ত তদন্ত হয় তা হলে  মাফিয়ার আসল চেহারা বেরিয়ে আসবে বলে তাদের আশা ।