বৃহস্পতিবার, ৫ই আগস্ট, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

NewsFile Institute
Home / Big Picture Stories  / নারদ কাণ্ডে সি বি আইর হাতে গ্রেফতার বাংলার মন্ত্রীরা জামিন পেলেন

নারদ কাণ্ডে সি বি আইর হাতে গ্রেফতার বাংলার মন্ত্রীরা জামিন পেলেন

সন্ধ্যের দিকে সিবিআই ধৃত ৪ জনকে ১৪ দিনের হেফাজত চেয়ে আদালতে আবেদন জানায়। কিন্তু সিবিআইর বিশেষ আদালত হেফাজতের আবেদন খারিজ করে ৪ জনেরই জামিন মঞ্জুর করে।

মিঠুলাল চৌধুরী

লকডাউনে যখন স্তব্ধ কলকাতা মহানগরীর জনজীবন, ঠিক সেই সময় আজ সকালে সিবিআই তৃণমূল কংগ্রেসের ২ হেভিওয়েট মন্ত্রী ও ১ বিধায়ক সহ ৪ জনকে গ্রেফতার করে নিজাম প্যালেসে নিয়ে আসে। এরপর সারাদিন তৃণমুলীদের ধুন্ধুমার ভাঙচুর, টায়ার জ্বালিয়ে পথ অবরোধ এবং বিক্ষোভের পর সন্ধ্যার সময় আদালতে ধৃতদের জামিন হয়। আজ সকালে মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম, মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়, বিধায়ক মদন মিত্র এবং কলকাতার প্রাক্তন মেয়র শোভন চ্যাটার্জিকে নারদ মামলায় তাদের বাড়ি থেকে গ্রেফতার করে নিজাম প্যালেসে নিয়ে আসে সিবিআই। খবর ছড়িয়ে পড়তেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি সহ পশ্চিমবঙ্গ মন্ত্রীসভার অনেক মন্ত্রী, বিধায়ক, সাংসদ নিজাম প্যালেসে পৌঁছে যান। মুখ্যমন্ত্রী প্রায় ৬ ঘন্টা নিজাম প্যালেসে অবস্থান করেন। সেই সময় নিজাম প্যালেসের বাইরে কেন্দ্রিয় বাহিনীর সামনে তৃণমূল কংগ্রেসের কর্মীরা বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন। নিজাম প্যালেসে কার্যত রণক্ষেত্রের পরিবেশ তৈরি হয়। মারমুখী তৃণমূল কংগ্রেস কর্মীরা ব্যারিকেড ভাঙ্গা সহ ইট ও পাথর দিয়ে কেন্দ্রিয় বাহিনীকে আক্রমণ করে। রাজভবনেরও উত্তর, দক্ষিণ ও পূর্ব দিকের গেটে তৃণমূল কংগ্রেসের নেতা ও কর্মীরা বিক্ষোভ, অবরোধ করে খণ্ডযুদ্ধের পরিবেশ তৈরি করেন। যদিও ঘটনাস্থলগুলোতে পুলিশ ও র‌্যাফ ছিল।


সন্ধ্যের দিকে সিবিআই ধৃত ৪ জনকে ১৪ দিনের হেফাজত চেয়ে আদালতে আবেদন জানায়। কিন্তু সিবিআইর বিশেষ আদালত হেফাজতের আবেদন খারিজ করে ৪ জনেরই জামিন মঞ্জুর করে। আজকের এই ঘটনায় তৃণমূল কংগ্রেস বলছে, রাজনৈতিক প্রতিহিংসা নিয়ে নারদ মামলায় বিজেপি সিবিআইকে দিয়ে এই গ্রেফতার করিয়েছে। বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারী ও মুকুল রায়কে কেন গ্রেফতার করা হল না। তৃণমূলের আরও অভিযোগ, রাজ্যপাল বিজেপির হয়ে কাজ করছেন। রাজ্য বিজেপির বক্তব্য, আইন অনুযায়ী ৪ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এব্যাপারে তৃণমূল অহেতুক রাজনীতি করছে।