বৃহস্পতিবার, ৫ই আগস্ট, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

NewsFile Institute
Home / Big Picture Stories  / করোনা সংক্রমণ রুখতে এই মুহূর্তে অসমে সম্পূর্ণ লকডাউন চান অনেকেই, সরকারি সিদ্ধান্ত ‘আংশিক’ এবং নতুন এস ও পি

করোনা সংক্রমণ রুখতে এই মুহূর্তে অসমে সম্পূর্ণ লকডাউন চান অনেকেই, সরকারি সিদ্ধান্ত ‘আংশিক’ এবং নতুন এস ও পি

অসমে জেলায় জেলায় বাড়ছে করোনা সংক্রমণ। রাজ্যের প্রথম দশটি জেলার মধ্যে প্রথম স্থানে আছে কামরূপ মহানগর। দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থানে আছে যথাক্রমে ডিব্রুগড় ও কামরূপ। নগাঁও, বলবাড়ি, তিনসুকিয়া, দরং ও কাছাড়েও প্রতিদিন করোনা আক্রান্ত রোগীর

শতানন্দ ভট্টাচার্য

অসমের করোনা পরিস্থিতি চূড়ান্ত ভয়াবহ হলেও এই মুহূর্তে হিমন্ত বিশ্ব শর্মার নেতৃত্বাধীন নতুন সরকার রাজ্যে সম্পূর্ণ লকডাউনের পথে যাচ্ছে না।গতকাল রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ গ্রহণের পর আজ ১৩ জন মন্ত্রীর দফতর বণ্টন করা হয়।

আজ সন্ধ্যায় প্রথম ক্যাবিনেট বৈঠক সেরে নতুন স্বাস্থ্য মন্ত্রী কেশব মহন্ত সাংবাদিকদের জানিয়ে দেন যে সরকার সম্পূর্ণ লকডাউনে নাও যেতে পারে তবে করোনা পরিস্থিতিতে সরকার নিয়ম কানুন আরো কঠিন করবে এবং আগামীকাল মুখ্যসচিব একটি এস ও পি জারি করবেন। সূত্রমতে বর্তমানে অসমে থাকা সন্ধ্যে ৬ টার কার্ফু হয়তো দুপুর দুটোয় এগিয়ে নিয়ে আসা হতে পারে এবং ব্যাবসায়ী প্রতিষ্ঠান হয়তো দুপুর একটায় বন্ধ হতে পারে। মন্ত্রী সাংবাদিকদের জানান যে এই মুহূর্তে পুরো লকডাউনের পথে হাঁটলে ঘোষণা করতে হবে নতুন বিশেষ অর্থনৈতিক প্যাকেজ।

এইমুহুর্তে অসমে রোজ প্রায় ৬০০০ মানুষ করোনা আক্রান্ত হচ্ছেন। সরকারি তথ্য মতে আজ সন্ধ্যে পর্যন্ত মারা গেছেন ১৫৩১ জন। রাজ্যে এই মুহূর্তে এক্টিভ রোগীর সংখ্যা ৩১,৮২৯ । সবমিলিয়ে কনফার্মড করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ২,৭৭,৬৮৭ জন ।

বর্তমানে অসমে করোনা সংক্রমণ রোধে সন্ধ্যে ৬টা থেকে সকাল পাঁচটা অব্দি কার্ফু জারি রেখেছে সরকার এবং দোকান বাজার বন্ধ হচ্ছে দুপুর দুটোতেই।

এদিকে অসমে এই মুহূর্তে লকডাউন না হওয়ার খবরে অনেকেই হতাশ। গতবছর যারা লকডাউন চাননি তারাও এবার নিজের ও পরিবারের জীবন বাঁচাতে সম্পূর্ণ লকডাউন চাইছেন । সরকারের দেওয়া বিধিনিষেধ বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই মানা হচ্ছে না এবং এজন্যই মানুষ ভিত বলেও জানা গেছে ।

মিঠুলাল চৌধুরীর সংযোজন –

বেশ কয়েকটি সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে সরকারের প্রথম ক্যাবিনেট বৈঠকে। এরমধ্যে গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে
রাজ্যে এখনই সম্পূর্ণ লকডাউন হবে না। করোনা নিয়ে বুধবার নতুন নির্দেশনা প্রকাশ করবেন রাজ্যের মূখ্য সচিব ও ডিজিপি। করোনা নিয়ে প্রত্যেক ক্যাবিনেট মন্ত্রীকে জেলাভিত্তিক দায়িত্ব দেওয়া হবে। ১ লক্ষ বেকার যুবক ও যুবতীকে চাকরি দেওয়ার জন্য অর্থমন্ত্রী অজন্তা নেওগকে অধ্যক্ষ করে সরকার একটি কমিটিও গঠন করেছে। ৩ মাসের মধ্যে এই কমিটি রিপোর্ট প্রদান করবে। এনআরএল – য়ে ২৬ শতাংশ শেয়ার বৃদ্ধি করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। মাইক্রো ফাইন্যান্সের ঋণ পরিশোধ করা নিয়ে মন্ত্রী অশোক সিংঘলকে অধ্যক্ষ করে আরো একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। আজ অসম সরকারের প্রথম ক্যাবিনেট বৈঠক মুখ্যমন্ত্রী হিমন্তবিশ্ব শর্মার সভাপতিত্বে জনতা ভবনে অনুষ্ঠিত হয়। এরপর এক সাংবাদিক বৈঠকে মন্ত্রী কেশব মহন্ত, পীযূষ হাজরিকা ও চন্দ্র মোহন পাটোয়ারী সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানিয়েছেন। বৈঠকে রাজ্যের বর্তমান করোনা পরিস্থিতি নিয়ে বিস্তারিত ভাবে আলোচনা করা হয়েছে বলে জানানো হয়েছে । এবং এখন থেকে প্রতি সপ্তাহের বুধবার ক্যাবিনেটের বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে। সাংবাদিক বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রীর রাজনৈতিক সচিব জয়ন্ত মল্ল বরুয়াও উপস্থিত ছিলেন।
উল্লেখ্য, অসমে জেলায় জেলায় বাড়ছে করোনা সংক্রমণ। রাজ্যের প্রথম দশটি জেলার মধ্যে প্রথম স্থানে আছে কামরূপ মহানগর। দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থানে আছে যথাক্রমে ডিব্রুগড় ও কামরূপ। নগাঁও, বলবাড়ি, তিনসুকিয়া, দরং ও কাছাড়েও প্রতিদিন করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। গত ২৪ ঘন্টায় অসমে করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ৫,৮০৩ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ৭৭ জনের।