বৃহস্পতিবার, ৫ই আগস্ট, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

NewsFile Institute
Home / Big Picture Stories  / করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় ব্যর্থ নেপালের প্রধানমন্ত্রী ওলি আস্থা ভোটে পরাজিত

করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় ব্যর্থ নেপালের প্রধানমন্ত্রী ওলি আস্থা ভোটে পরাজিত

২০১৫ সনের সেপ্টেম্বরে নেপালে গনতন্ত্র প্রতিষ্ঠা হয়। এরপর এই প্রথম নেপালের কোন প্রধানমন্ত্রী আস্থা ভোটে পরাজিত হলেন।

মিঠুলাল চৌধুরী

নেপালের প্রধানমন্ত্রী কেপি শর্মা ওলি সংসদের আস্থা ভোটে সোমবার পরাজিত হলেন। যারফলে নিয়ম অনুযায়ী এবার তাঁকে নেপালের প্রধানমন্ত্রীর পদ থেকে পদত্যাগ করতে হবে। নেপালে বর্তমানে করোনা পরিস্থিতি ঠিকভাবে সামলাতে না পারার অভিযোগে ওলির বিরুদ্ধে সংসদে অনাস্থা প্রস্তাব আনা হয়। আস্হা ভোটে প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে ৯৩টি ভোট পড়ে এবং বিপক্ষে পড়ে ১২৮টি ভোট। ১৫ জন সংসদ সদস্য অনুপস্থিত ছিলেন।


প্রসঙ্গত, ২০১৫ সনের সেপ্টেম্বরে নেপালে গনতন্ত্র প্রতিষ্ঠা হয়। এরপর এই প্রথম নেপালের কোন প্রধানমন্ত্রী আস্থা
ভোটে পরাজিত হলেন। কেপি শর্মা ওলি দায়িত্ব নেওয়ার পর ৩৮ মাস নেপালের প্রধানমন্ত্রী পদে ছিলেন। তাঁর প্রধানমন্ত্রীত্বের সময় একাধিক বিতর্কিত বিষয়েরও জন্ম হয়েছে। যার মধ্যে ছিল নেপালের সীমানা নিয়ে ভারতের সাথে মতবিরোধ। যদিও এই কাজের জন্য ওলিকে পিছন থেকে চিনের মদত ছিল বলেও অভিযোগ উঠে। ভারতের পক্ষ থেকে বিষয়টি নিয়ে তীব্র আপত্তি জানানো হয় । এমনকি ওলির নিজের দলের নেতারাও ভারতের সাথে সীমান্ত নিয়ে অযথা ঝামেলাকে ভালভাবে নেননি। দলের নেতারা তাদের মতামত প্রকাশ্যেই বলেছিলেন। সেইসময় অনেক সাংসদ ওলিকে প্রধানমন্ত্রীর পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হউক এমন মতামতও দিয়েছিলেন। কিন্তু শেষপর্যন্ত দেশের করোনা পরিস্থিতি নিয়ে প্রধানমন্ত্রী ওলির ভুমিকার বিরুদ্ধে নেপালের জনগণের মধ্যে ক্ষোভ জমতে থাকে। সেই ক্ষোভেরই ছবি নেপালী সংসদের আস্হা ভোটে দেখতে পাওয়া গেল বলেই অনেকে মনে করছেন।