মঙ্গলবার, ২৭শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

NewsFile Institute
Home / Big Picture Stories  / ধোঁয়ায় করিমগঞ্জ হাসপাতালের রোগীদের অবস্থা বেহাল

ধোঁয়ায় করিমগঞ্জ হাসপাতালের রোগীদের অবস্থা বেহাল

বিষয়টি ভিডিও করে জেলা শাসক, হাসপাতাল পরিচালনা কমিটির চেয়ারম্যান, হাসপাতালের যুগ্ম সঞ্চালক ও সুপার সকলের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন সমাজকর্মী তথা রবিন হুড আর্মির জেলা কর্ণধার সুজন দেব রায় ।

অরুপ রায় 
করিমগঞ্জ, মে ৯,

কোভিড কিট, হাসপাতালের আবর্জনা, প্লাস্টিক, প্রতিদিন হাসপাতালে চত্তরে জ্বালিয়ে দেওয়া হয় । এর ফলে অবর্জনা জ্বলার পর ধোঁয়া অন্যান্য রোগীর ক্ষতি করে । এনিয়ে বার কয়েক হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে অবগত করা হয় কিন্তু কেউ তাতে কর্ণপাত করেননি । আজ আবর্জনার সামগ্রীর মাত্রা অধিক থাকায় জ্বালানোর পর ধোঁয়ায় গোটা হাসপাতাল ঢেকে যায়। যেখানে আবর্জনা জ্বালানো হচ্ছে তার দুপাশে সিরিয়াস রোগীদের রাখা হয় যাদের পর্যাপ্ত পরিমাণে অক্সিজেনের প্রয়োজন হয় । কিন্তু হাসপাতালে আবর্জনার ধোঁয়া বাতাসে মিসে পরিবেশ বিষাক্ত হয়ে উঠে শ্বাস নিতে কষ্ট হয় কোভিড হাসপাতালের চিকিৎসাধীন করোনা রোগীরা এবং সদ্য জন্ম হওয়া শিশুদের । কি কারণে হাসপাতাল চত্তরে মানুষের জীবন নিয়ে ছেলে খেলা হচ্ছে তা কেউ বলতে পারছেন না।

বিষয়টি ভিডিও করে জেলা শাসক, হাসপাতাল পরিচালনা কমিটির চেয়ারম্যান, হাসপাতালের যুগ্ম সঞ্চালক ও সুপার সকলের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন সমাজকর্মী তথা রবিন হুড আর্মির জেলা কর্ণধার সুজন দেব রায় ।

এদিকে করোনা কোন অবস্থায় করিমগঞ্জ জেলার পিছু ছাড়ছে না । প্রতিদিন রোগীর সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। আজ জেলায় ১২৯৪ জনের সোয়াব পরীক্ষা করা হয়েছে । তার মধ্যে ১১২ জন করোনা আক্রান্ত পাওয়া যায়। জেলায় আজ পর্যন্ত করোনা রোগীর সংখ্যা ৪৭০ তবে  আজ ১৫ জন সুস্থ হয়ে উঠেছেন । করোনা পরিস্তিতির দিকে লক্ষ রেখে ১৫ টি কন্টেইনমেন্ট মেন জোন ঘোষণা করা হয়েছে ।

এদিকে আজ জেলায় ১১২ জনের মধ্যে জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার পঙ্কজ যাদব, নিলামবাজার এলাকার সাংবাদিক ফাইম সিদ্দিকি রয়েছেন। 

এদিকে, করিমগঞ্জ জেলার জন্য দুঃসংবাদ নিয়ে আসে করোনা । করিমগঞ্জ জেলা পুলিশের প্রাক্তন ডিএসপি রণবীর শর্মা গুয়াহাটিতে কোভিড আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর কাছে হার মানেন । রণবীর শর্মার মৃত্যুতে করিমগঞ্জ জেলায় শোকের ছায়া নেমে আসে । 

রাত পোহালেই করোনা  রোগীর সংখ্যা ৫০০ অতিক্রম করবে কিন্তু গ্রাম করিমগঞ্জে কোভিড নিয়ম মানছেন না কেউই । ফলে করোনা দ্রুত গতিতে ছডিয়ে পড়ছে। জেলা প্রশাসন শক্ত হাতে মোকাবিলা না করলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাহিরে চলে যেতে পারে বলে অনেকের ধারনা ।