রবিবার, ২৫শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

NewsFile Institute
Home / Big Picture Stories  / ওএনজিসি কর্মীদের অপহরণকান্ডে জড়িত কনেস্টবল গ্রেফতার

ওএনজিসি কর্মীদের অপহরণকান্ডে জড়িত কনেস্টবল গ্রেফতার

এদিকে যৌথ বাহিনীর গুলিতে মৃত্যু হয়েছে ঋতুল শইকিয়ার। অথবা সেনাবাহিনী উদ্দেশ্যেপ্রণোদিতভাবে তাঁকে লুকিয়ে রেখেছে। এই চাঞ্চল্যকর অভিযোগও করেছে আলফা ( স্বাধীন ) ।

মিঠুলাল চৌধুরী

ওএনজসির ৩ কর্মীর অপহরণকান্ডে জড়িত থাকার অভিযোগে সোমবার বসন্ত বুঢ়াগোঁহাই নামে ১ পুলিশ কর্মীকে তিনসুকিয়া জেলার সদিয়া থেকে গ্রেফতার করা হয়। জানা গেছে, গ্রেফতার পুলিশ কর্মী ২৫ অসম ব্যাটেলিয়নের জওয়ান । সদিয়াতে তাঁর বাড়ি। নাজিরার লিগিরি পুখুরিতে সে কর্মরত ছিল।


উল্লেখ্য, আলফা ( স্বাধীন) – র সঙ্গে গুলিযুদ্ধের পর ওএনজিসির অপহৃত ৩ কর্মীর মধ্যে ২ জনকে উদ্ধার করতে সক্ষম হয়েছিল যৌথ বাহিনী। আলফার ( স্বাধীন ) কবল থেকে মুক্ত হওয়া ওএনজিসির ২ কর্মী হলেন অলকেশ শইকিয়া এবং মোহিনীমোহন গগৈ। ওপর অপহৃত কর্মী ঋতুল শইকিয়াকে এখনও উদ্ধার করতে পারেনি যৌথ বাহিনী।


এদিকে যৌথ বাহিনীর গুলিতে মৃত্যু হয়েছে ঋতুল শইকিয়ার। অথবা সেনাবাহিনী উদ্দেশ্যেপ্রণোদিতভাবে তাঁকে লুকিয়ে রেখেছে। এই চাঞ্চল্যকর অভিযোগও করেছে আলফা ( স্বাধীন ) । গত শনিবার এক বিবৃতিতে আলফার প্রচার বিভাগের সদস্য ক্যাপ্টেন রুমেল অসম জানান, গত ২০ এপ্রিলের রাতে আলফা ( স্বাধীন) এবং এনএসসিএন অপহৃতদের নিজের তত্বাবধানে নেওয়ার পর শুক্রবার গভির রাতে ভারতীয় সেনার সঙ্গে দু পক্ষের মধ্যে গুলির লড়াই হয়। কিন্তু ৩ জন কর্মীর নিরাপত্তার কথা ভেবে নাগাল্যান্ডের মন জেলার টাকাক চিনখু গ্রামে তাঁদের সুস্থ অবস্থায় গ্রামের মানুষের হাতে সমঝে দেওয়া হয়। যৌথবাহিনীর জানা সত্বেও তারা গুলিবর্ষণ করে। বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, সেনার দল গ্রাম থেকে অলকেশ ও মোহিনীমোহনকে উদ্ধার করলেও ঋতুলকে উদ্ধার করতে পারেনি। আলফা জানিয়েছে, সেনার গুলিতে হয়তো ঋতুলের মৃত্যু হয়েছে অথবা তাঁকে সেনাবাহিনী লুকিয়ে রেখেছে। বিবৃতিতে আলফা আরও বলেছে, এই ঘটনায় আলফা (স্বাধীন ) এবং এনএসসিএন দায়ী নয়। এই ঘটনার জন্য ওএনজিসিকে দায়ি করেছে আলফা। আগামি দিনে এই প্রতিষ্ঠানটিকে ভয়ঙ্কর পরিণতি ভুগতে হবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছে আলফা ( স্বাধীন)। গত ২১ এপ্রিল ভোর রাতে ওএনজিসির লাকুয়ার তৈলক্ষেত্র থেকে কর্মরত অবস্থায় ৫ জনের সশস্ত্র আলফার একটি দল অপহরণ করে নিয়ে যায় অলকেশ, মোহিনীমোহন এবং ঋতুলকে।


এদিকে, পুলিশ বসন্ত বঢ়াগোঁহাই ছাড়াও বিরাজ চেতিয়া ও রাহুল মোহনকে ঘটনার সাথে যুক্ত থাকার জন্য গ্রেফতার করেছে। ঋতুল শইকিয়ার খোঁজে পুলিশ ও সেনার যৌথ বাহিনী তল্লাশি চালাচ্ছে।