শনিবার, ২৪শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

NewsFile Institute
Home / Big Picture Stories  / “এ আই ইউ ডি এফ আমাকে পুড়িয়ে মারার চক্রান্ত করেছিল”, আমিনুল হক

“এ আই ইউ ডি এফ আমাকে পুড়িয়ে মারার চক্রান্ত করেছিল”, আমিনুল হক

অভিযোগ ওঠে বিধায়ক আমিনুল ও তার দেহরক্ষীর গুলিতেই চারজন যুবক গুরুতর ভাবে আহত হয়েছেন।

শঙ্করী চৌধুরী

দক্ষিণ অসমের বরাক উপত্যকার কাছাড় জেলার সোনাই বিধানসভা কেন্দ্রের ধনেহরিতে বৃহস্পতিবার সংগঠিত হিংসাত্মক ঘটনার জন্য সরাসরি এআইইউডিএফকে দায়ি করলেন ওই আসনের বিজেপি প্রার্থী আমিনুল হক লস্কর। শুক্রবার সাংবাদিক সম্মেলন করে তিনি জানান, ধনেহরি প্রথম খন্ডের ৪৬৩ নং মধ্য ধনেহরি এলপি স্কুলের বুথ কেন্দ্রে তাঁকে পুড়িয়ে মারার চক্রান্ত করা হয়েছিল। গ্রামের কয়েকজন দুষ্কৃতিকারী মধ্য ধনেহরি এলপি স্কুলের বুথ কেন্দ্রে আগুন ধরিয়ে দিতে চাইলে দেহরক্ষীরা বাধ্য হয়ে শুন্যে গুলি করে। ঘটনার ব্যাপারে তিনি এসপি, এডিজিপিকে জানালে তারা ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন। তিনি জানান, ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার হওয়া পিস্তলটি প্রার্থী করিম উদ্দিন বড়ভূঁইয়ার। পিস্তলটি ফরেনসিক ল্যাবে পাঠিয়ে তাতে কার আঙ্গুলের ছাপ রয়েছে তা জানতে পুলিশের কাছে দাবি জানান। ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার হওয়া আগ্নেয়াস্ত্রটি দিয়ে তাকে হত্যার পরিকল্পনা করা হয়েছিল বলেও গুরুতর অভিযোগ তোলেন। এছাড়া তিনি ধনেহরি সহ স্বাধীন বাজার, সোনাবাড়িঘাটের বুথ কেন্দ্রগুলোতে পুনরায় ভোটগ্রহণের দাবি জানিয়েছেন।উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার ভোটের দিন শেষ লগ্নে ধনেহরি প্রথম খন্ডের ৪৬৩ নং মধ্য ধনেহরি এলপি স্কুলের ভোটকেন্দ্রে বিধায়ক আমিনুল হকের সঙ্গে এক ভোটারের বচসাকে কেন্দ্র করে কয়েক রাউন্ড গুলিতে রক্তারক্তি কান্ড ঘটে যায়। এতে চার যুবক আহত হন বলে জানা যায়। আহতরা হলেন বাহারুল ইসলাম বড়ভূইয়া, আজির হোসেন লস্কর, মসরুল বড়ভূইয়া এবং আনোয়ার হোসেন লস্কর। অভিযোগ ওঠে বিধায়ক আমিনুল ও তার দেহরক্ষীর গুলিতেই চারজন যুবক গুরুতর ভাবে আহত হয়েছেন। এদিন ভোট গ্রহণ কেন্দ্রের ভেতরেই বিধায়ক ও তাঁর ঘনিষ্ঠদের অবরুদ্ধ করে রাখা হয়। তিন ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে তিনি সেখানে অবরুদ্ধ থাকেন বলে প্রাপ্ত সূত্রে জানা গেছে।

ঘটনা নিয়ে উত্তেজনা রয়েছে এলাকায়।