বুধবার, ৪ঠা আগস্ট, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

NewsFile Institute
Home / Big Picture Stories  / অসমে বিজেপি বিধায়কের গাড়িতে ইভিএম মেশিন পাওয়ার জেরে সাসপেন্ড ৪ ভোটকর্মী

অসমে বিজেপি বিধায়কের গাড়িতে ইভিএম মেশিন পাওয়ার জেরে সাসপেন্ড ৪ ভোটকর্মী

নির্বাচন কমিশন রাতাবাড়ি বিধানসভা সমষ্টির ১৪৯ নং বুথ কেন্দ্র ইন্দিরা এম ভি স্কুলে নিযুক্ত থাকা বুথ কর্মীদের বরখাস্ত করে এই কেন্দ্রে পুনরায় ভোট গ্রহণের নির্দেশ জারি করেছে।

অরুপ রায়, করিমগঞ্জ, এপ্রিল ২,
বিজেপি বিধায়কের গাড়িতে ইভিএম মেশিন কাণ্ডে চারজনকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়ার পর তাদের বরখাস্ত করা হলো দক্ষিণ অসমের করিমগঞ্জ জেলায়। অপ্রীতিকর ঘটনার ১২ ঘন্টা অতিবাহিত না হওয়ার আগেই
নির্বাচন কমিশন রাতাবাড়ি বিধানসভা সমষ্টির ১৪৯ নং বুথ কেন্দ্র ইন্দিরা এম ভি স্কুলে নিযুক্ত থাকা বুথ কর্মীদের বরখাস্ত করে এই কেন্দ্রে পুনরায় ভোট গ্রহণের নির্দেশ জারি করেছে।
নির্বাচন কমিশনের পরিবহণ সংক্রান্ত বিধি নিষেধ লংঘন করার অভিযোগে বুথ কর্মীদের বরখাস্ত করা হয়েছে বলে জানানো হয়েছে।
তবে পুরো ঘটনা নিয়ে জেলা প্রশাসনের নিরবতা জনমনে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে । সামাজিক প্রচার মাধ্যমে গোটা ঘটনার উচ্চ পর্যায়ের তদন্তের দাবি জানিয়েছে সমাজের বিভিন্ন মহল।নির্বাচন কমিশনের আন্ডার সেক্রেটারি পবন দেওয়ান শুক্রবার এমর্মে এক নির্দেশ জারি করে জানান,
সংরক্ষিত রাতাবাড়ি বিধানসভার ১৪৯ নং ইন্দিরা এম ভি স্কুলের চার জন ভোট কর্মী প্রিসাইডিং অফিসার সাহাব উদ্দিন তালুকদার, শিক্ষক সৌরভ আচার্য, আব্দুল মুমিত চৌধুরী, সাহাব উদ্দিন তাপাদারকে প্রথমে কারণ দর্শানো নোটিশের পর বরখাস্ত করার আদেশ দেওয়া হয়। তবে জেলা প্রশাসন এনিয়ে কি পদক্ষেপ নিয়েছে তা খুলাসা করেনি।
২০২১এর নির্বাচনে করিমগঞ্জ জেলা প্রশাসনের চরম গাফিলতি ছিল প্রতিটি কাজেই, এ অভিযোগ সর্বত্র। ভোটকর্মীদের তিনদিনের ট্রেনিং থেকে নির্বাচনের দুদিন বা একদিন আগে থেকে গন্তব্য স্থলে যেতে হয়েছে কিন্তু যাওয়া আসার জন্য যে গাড়ি দেওয়া হয়েছিল সেই গাড়ি বা ভোট কেন্দ্রে থাকা সব কিছু নিয়ে চরম অব্যবস্থা ছিল । তারপরও শান্তিপূর্ন ভাবে গোটা জেলায় ভোট পর্ব সমাপ্ত হয়।
নির্বাচন কমিশনের লিখিত পত্রে জানানো হয়,
বৃহস্পতিবার দ্বিতীয় পর্যায়ের ভোট গ্রহণের পর রাতাবাড়ি সমষ্টির ১৪৯ নম্বর বুথ কেন্দ্র থেকে বুথ কর্মীরা ইভিএম সহ অন্যান্য সামগ্রী নিয়ে ফেরার পথে নিলামবাজারে এসে হঠাৎ তাদের গাড়িটি বিকল হয়ে পড়ে। ভোটের দিন সকালে ভারী বৃষ্টিপাতের ফলে ৮ নং জাতীয় সড়কের অবস্থা আরো বেহাল হয়ে পড়ে। এমতাবস্থায় মাঝ রাস্তায় তারা অন্য একটি গাড়ির সাহায্য নিয়েছিল। কিন্তু সেই গাড়ি যে বিজেপির বিধায়কের তা জানা ছিল না। যখন কিছু দুস্কৃতিকারী তাদের সাহায্যে এগিয়ে আসা গাড়িতে আক্রমন করলো ও ভাঙচুর চালালো তখন তারা জানতে পারলেন গাড়ির মালিক পাথারকান্দির বিধায়ক কৃষ্ণেন্দু পাল। দুস্কৃতিকারীরা প্রথমে গাড়ি ভাঙচুর করে পরে গাড়ির চালককে মারধর এবং প্রিসাইডিং অফিসার সহ সকল ভোটকর্মীদের নির্যাতন করে। পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে দুষ্কৃতীরা গাড়িতে অগ্নিসংযোগ এবং কৃষ্ণেন্দু পালের বাড়িতে হামলা চালানোর পরিকল্পনা নিয়ে যখন এগিয়ে আসছিল তখন পুলিশ প্রথমে লাঠিচার্জ ও পরে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে শূন্যে তিন রাউন্ড ফাঁকা গুলি চালায়। তবে পুলিশ ঘটনার সঙ্গে জড়িত ব্যক্তিদের প্রাথমিক তদন্তে শনাক্ত করেছে‌‌। এদের মধ্যে রয়েছেন পাথারকান্দি বিধানসভার ইমদাদুল্লাহ, সাদিক আহমেদ, সুহাইল আহমেদ (মনর), মৌলানা ওয়াহিদুজ্জামান, জুবের আহমেদ ,বিলাল উদ্দিন,ইফতেখার বাহার এবং আলহাজ উদ্দিন।