বৃহস্পতিবার, ৫ই আগস্ট, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

NewsFile Institute
Home / Big Picture Stories  / বাংলায় বিজেপির সরকার চালাবো আমি আর দিলীপ ঘোষ, দাবি নন্দীগ্রামের বিজেপি প্রার্থী শুভেন্দু অধিকারীর

বাংলায় বিজেপির সরকার চালাবো আমি আর দিলীপ ঘোষ, দাবি নন্দীগ্রামের বিজেপি প্রার্থী শুভেন্দু অধিকারীর

বিজেপি ভোট লড়ছে নরেন্দ্র মোদি কে প্রার্থী হিসেবে মুখ দেখিয়ে।

অনিন্দিতা আচার্য

কলকাতা,
বাংলায় প্রথম দফার ভোট সম্পন্ন হয়েছে কিন্তু এখনো বাংলার মানুষ বিজেপির কে মুখ্যমন্ত্রী হবেন সেটা জানে নাI বিজেপি ভোট লড়ছে নরেন্দ্র মোদি কে প্রার্থী হিসেবে মুখ দেখিয়ে। অমিত শাহ এবং প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলেছেন বিজেপি ক্ষমতায় এলে মুখ্যমন্ত্রী হবে বাংলার এক ভূমিপুত্রI একটা সময় শোনা যাচ্ছিল সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়, মিঠুন চক্রবর্তীর নামওI

যদিও মিঠুন চক্রবর্তী বিজেপিতে নাম লিখিয়েছেন, কিন্তু তিনি প্রার্থী হননিI

এবার এক চাঞ্চল্যকর দাবি করলেন বিজেপির শুভেন্দু অধিকারীI নন্দীগ্রামের বিজেপি প্রার্থী শুভেন্দু অধিকারী বলেছেন, বাংলায় বিজেপি ক্ষমতায় এলে সরকার চালাবেন তিনি এবং দিলীপ ঘোষI শুভেন্দুর এই দাবিতে শোরগোল পড়ে গেছে বঙ্গ রাজনীতিতেI

রবিবার খড়গপুর প্রার্থী বিজেপি প্রার্থী হিরণ চট্টোপাধ্যায়ের সমর্থনে সভা করেন শুভেন্দু অধিকারীI সামনে এক এপ্রিল তার নিজের কেন্দ্র নন্দীগ্রামে ভোট যদিও মেদিনীপুরের মাটিতে দাঁড়িয়ে তিনি টেনে আনেন খড়গপুর সদরের উপনির্বাচনে প্রসঙ্গI শুভেন্দু অধিকারী বলেন, “এখানকার উপনির্বাচনে প্রদিপ সর্কার জয় একটি দুর্ঘটনাI ওটা বাদ দিয়ে দিন কারণ শুভেন্দু অধিকারী না থাকলে ঐ উপনির্বাচনে তৃণমূল বৈতরণী পার করতে পারত নাI সেই সময় মমতা এখানে আসেন নিI তোলাবাজ ভাইপো আসেনিI

আর তারপরেই শুভেন্দু বলে ওঠেন বাংলায় এবার বিজেপি সরকার আসছে আর সরকার চালাবো আমি আর দিলীপ ঘোষ মিলেI যদিও শুভেন্দু এর আগেও নিজের সঙ্গে দিলীপ ঘোষের প্রসঙ্গ টেনে এনেছেন, মেদিনীপুর ঝাড়গ্রাম থেকে তৃণমূলকে উৎখাত করার চ্যালেঞ্জ জানিয়েছেনI

পয়লা এপ্রিল নন্দীগ্রামে ভোটI সেই ভোটে প্রথমবার প্রার্থী হয়েছেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আর তার বিপক্ষে দাঁড়িয়েছেন তাঁরই একদা সৈনিক এখন বিজেপির নেতা শুভেন্দু অধিকারীI শুভেন্দু আত্মবিশ্বাসী যে তিনি তাঁর একদা নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কে ৫০ হাজারেরও বেশি ভোটে হারাতে পারবেনI অন্যদিকে অমিত শাহ দিল্লি থেকে বলেছেন যে যদি নন্দীগ্রামের মানুষ নন্দীগ্রামে পরিবর্তন আনতে পারে তাহলে গোটা বাংলায় পরিবর্তন এসে যাবেI