রবিবার, ২৫শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

NewsFile Institute
Home / Big Picture Stories  / ব্যয় সংক্রান্ত হিসেব দেখাতে ব্যর্থ হওয়ায় কাছাড়ে ৩৩ জন এবং হাইলাকান্দিতে ১৩ জন প্রার্থীকে নোটিশ দিল প্রশাসন

ব্যয় সংক্রান্ত হিসেব দেখাতে ব্যর্থ হওয়ায় কাছাড়ে ৩৩ জন এবং হাইলাকান্দিতে ১৩ জন প্রার্থীকে নোটিশ দিল প্রশাসন

কাছাড় জেলার সাতটি বিধানসভা আসনের শিলচর,সোনাই,ধলাই,উধারবন্দ, লক্ষীপুর,বড়খলা ও কাটিগড়ার রিটার্নিং অফিসার যথাক্রমে কীর্তি জল্লি, এলদাদ এল ফাহিরেম, ডঃ খালেদা সুলতানা আহমেদ, সুমিত সাত্তায়ন, দীপক জিডুং,ললিতা রংপিপি ও ভূপেশ চন্দ্র দাস উল্লেখিত ৩৩জন প্রার্থীকে নোটিশ

শতানন্দ ভট্টাচার্য
শিলচর, মার্চ ২৬,

দক্ষিণ অসমের বরাক উপত্যকার কাছাড় ও হাইলাকান্দি জেলায় বিধানসভা নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী প্রার্থীদের নির্বাচনে খরচের হিসেব না দেখানোর জন্যে জেলা প্রশাসন কয়েকজন প্রার্থীকে নোটিশ দিয়েছে। এরমধ্যে কাছাড়ে ৩৩ জন এবং হাইলাকান্দিতে ১৩ জনকে নোটিশ দিয়েছে প্রশাসন।

কাছাড়ে সাতটি বিধানসভা আসনে প্রতিদ্বন্দ্বী বিভিন্ন রাজনৈতিক দল ও নির্দল প্রার্থী নির্বাচনী ব্যয় সংক্রান্ত নথিপত্র নির্ধারিত দিনে পেশ না করা ও হিসেবে গরমিল থাকায় ৩৩ জন প্রার্থীকে নোটিশ জারি করা হয়েছে। নোটিশ জারি করেছেন সংশ্লিষ্ট বিধানসভা কেন্দ্রের রিটার্নিং অফিসাররা।


উল্লেখ্য, রাজ্যে দ্বিতীয় পর্যায়ের নির্বাচনে কাছাড় জেলায় প্রার্থীদের নির্বাচনী ব্যয় সংক্রান্ত হিসেবের খাতা এক্সপেনডিচার সেলে দেখানোর প্রথম বিজ্ঞাপিত তারিখ ছিল গত ২২ মার্চ।
নোটিশ পাওয়া প্রার্থীরা হলেন শিলচর বিধানসভা আসনের রাজু সিনহা (হিন্দুস্থান নির্মাণ দল), বক্তার উদ্দিন মজুমদার, অনুপ দত্ত, রোসনা বেগম লস্কর (নির্দল), বিস্ময় চমক গোস্বামী (ভারতীয় গন পরিষদ) ও প্রশান্ত লস্কর (রিপাবলিক পার্টি অব ইন্ডিয়া)। সোনাই বিধানসভা চক্রের সায়েল আহমদ বড়ভুইয়া, বিজন পাল, আশিস হালদার (নির্দল) ও আনোয়ার হোসেন লস্কর (সমাজবাদী দল)। ধলাই আসনের পরিমল শুক্লবৈদ্য (বিজেপি) ও কামাখ্যা প্রসাদ মালা (জাতীয় কংগ্রেস)। উধারবন্দ বিধানসভা আসনের নোটিশ পাওয়া প্রার্থীরা হলেন দেবজ্যোতি ভট্টাচার্য, সুব্রত মজুমদার, রাহুল রায় (নির্দল), মিহির কান্তি সোম (বিজেপি) ও আইনুল হক লস্কর (এজেপি)। লক্ষীপুর বিধানসভা আসনের থৈবা সিংহ, ক্ষিরোদ কর্মকার, চিরঞ্জিত আচার্য ( নির্দল), আলিম উদ্দিন মজুমদার (এজেপি), কৌশিক রাই (বিজেপি) ও মুকেশ পাণ্ডে (জাতীয় কংগ্রেস)। বড়খলা আসনের মিসবাহুল ইসলাম লস্কর (জাতীয় কংগ্রেস) , হিফজুর রহমান লস্কর, নজমুল হক লস্কর (নির্দল)। কাটিগড়া বিধানসভা আসনের জুনাইদ আহমদ বড়ভুইয়া, আব্দুল ওদুদ চৌধুরী, মনসুর হাসান চৌধুরী, নাসির উদ্দিন বড়ভুইয়া ও জিএমসি সাহাব উদ্দিন আহমদ (নির্দল), গৌতম রায় (বিজেপি) ও খলিল উদ্দিন মজুমদার (জাতীয় কংগ্রেস)।


এখানে উল্লেখ্য যে কাছাড় জেলার সাতটি বিধানসভা আসনের শিলচর,সোনাই,ধলাই,উধারবন্দ, লক্ষীপুর,বড়খলা ও কাটিগড়ার রিটার্নিং অফিসার যথাক্রমে কীর্তি জল্লি, এলদাদ এল ফাহিরেম, ডঃ খালেদা সুলতানা আহমেদ, সুমিত সাত্তায়ন, দীপক জিডুং,ললিতা রংপিপি ও ভূপেশ চন্দ্র দাস উল্লেখিত ৩৩জন প্রার্থীকে নোটিশ প্রদান করে বলেছেন যে বারবার যোগাযোগ করা সত্বেও ওই ৩৩জন প্রার্থী প্রয়োজনীয় ব্যয় রেজিস্ট্রার নিরীক্ষন করাতে ব্যার্থ হয়েছেন।


প্রার্থীদেরকে ৪৮ ঘন্টা সময়সীমা বেধে দিয়ে বলা হয়েছে এই সময়ের মধ্যে তাঁরা হিসেব পেশ ও হিসেবে গরমিল থাকা আপত্তির নিষ্পত্তি না করলে তাদের বিরুদ্ধে ১৯৫১ সালের জনপ্রতিনিধিত্ব আইনের ধারা ৭৭ এবং ভারতীয় দন্ডবিধির ধারা ১৭১(১) মতে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে সাফ জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। নোটিশে আরও বলা হয়েছে যদি প্রার্থীরা খরচের হিসেব ও আপত্তির নিষ্পত্তি না করেন তাহলে নিরাপত্তা রক্ষী, যানবাহনের অনুমতি সহ প্রশাসন প্রদত্ত অন্যান্য সুযোগ সুবিধাগুলি প্রত্যাহার করে নেওয়া হবে।

এদিকে হাইলাকান্দির তথ্য ও জনসংযোগ আধিকারিক সাবির নিশাথ জানিয়েছেন যে এখানে তিনটি বিধানসভা আসনে যে ১৩ জন প্রার্থীকে নোটিশ দেওয়া হয়েছে তারা হলেন বিজিপির মনোজ মহান দেব, নির্দল গুলে আহমেদ মজুমদার, নির্দল হিলাল উদ্দিন লস্কর, নির্দল কাজী আব্দুল হাকিম, নির্দল বদরুল ইসলাম বড়ভুইয়া, নির্দল মনোজ কুমার মালাকার, কংগ্রেসের সঞ্জীব রায়, বিজেপির সুব্রত নাথ, জনতা দল ইউনাইটেডের রাম কুমার নুনিয়া, নির্দল আচাব উদ্দিন বড়ভুইয়া, জহুর উদ্দিন তালুকদার, রাজেশ পাল ও লুৎফুর রহমান লস্কর।