মঙ্গলবার, ৩রা আগস্ট, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

NewsFile Institute
Home / Big Picture Stories  / আন্তর্জাতিক নারী দিবস – কিছু কথা

আন্তর্জাতিক নারী দিবস – কিছু কথা

আন্তর্জাতিক নারী দিবসের পূর্ব নাম ছিল আন্তর্জাতিক শ্রম দিবস,এই নাম নিয়েও কোন কোন সমাজসেবী সংস্থাও একসময় পালন করতো।

(আজ ৮ মার্চ আন্তর্জাতিক নারী দিবস। সামাজিক, অর্থনৈতিক, সাংস্কৃতিক ও রাজনৈতিক ক্ষেত্রে মহিলাদের কৃতিত্বকে চিহ্নিত করতে এই দিনটি পালন করা হয়। প্রতি বছরই পৃথক পৃথক থিম থাকে ঐ দিনটিতে। এ বছরের থিম হচ্ছে “নেতৃত্বে নারী : কোভিড ১৯ পৃথিবীতে সমান ভবিষ্যৎ লাভ”। )

আশুতোষ দাস

বিশ্বায়নের পথে আমরা এগিয়ে গেলেও এখনো নারী নির্যাতন সম্পূর্ণ অর্থে কমেনি, বরঞ্চ যৌণ নির্যাতন ক্রমাগত বেড়েই চলেছে। স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের সদর্থক কাজে কিছুটা হলেও মহিলারা তাদের ন্যায্য অধিকার নিয়ে সোচ্চার হতে পেরেছেন। বর্তমানে এই নারী আন্দোলন সূত্র ইতিহাসের প্রেক্ষিতে সংক্ষেপে আলোচনা করা যাক। ১৮৫৭ সনে নিউইয়র্কে যে নারী অধিকার আদায়ের বীজ সুচনা হয়েছিল তা পরবর্তীতে পৃথিবী জুড়ে বিশাল প্রতিবাদী আন্দোলনের রুপ নেয়।

বিভিন্ন আন্দোলনের ফলশ্রুতিতে
১৯৭৪ সনের ৮ মার্চকে রাষ্ট্রসংঘ নারী দিবস হিসেবে পালন করার কথা ঘোষণা করে। এরপর থেকে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশ অর্থাৎ জাতিসংঘের সদস্য ভুক্ত দেশগুলো আর্ন্তজাতিক নারী দিবস পালন করে আসছে।

উল্লেখ্য, আমাদের ভুললে চলবে না বহুবছর আগে ৮ মার্চ আমেরিকার নিউইয়র্ক শহরের এক সুতো কারখানার নারী শ্রমিকরা তাদের স্বাধীকার প্রতিষ্ঠার লড়াইয়ের জন্য এক প্রতিকূল অবস্থায় দাঁড়িয়ে সংঘবদ্ধভাবে প্রতিবাদ করেছিল, এজন্য মালিকপক্ষের দ্বারা তারা তখন লাঞ্ছিত হতে হয়েছিল, সেথেকেই নারী আন্দোলনের সূত্রপাত।

১৯১০ সনে আবার ডেনমার্কের কোপেন হেগেনে পুর্নবার নারী অধিকার নিয়ে পৃথিবীর সমাজতান্ত্রিক নেত্রীদের উদ্যেোগে নারী অধিকার নিয়ে আলোচনা বসে। সেই সম্মলনে ১৭টি দেশের ১০০ জন প্রতিনিধি নারীর অধিকার নিয়ে কথা বলেন। এইভাবে নারী আন্দোলন পৃথিবীজুড়ে ছড়িয়ে পড়ে।

আন্তর্জাতিক নারী দিবসের পূর্ব নাম ছিল আন্তর্জাতিক শ্রম দিবস,এই নাম নিয়েও কোন কোন সমাজসেবী সংস্থাও একসময় পালন করতো।
দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর থেকে পৃথিবী জুড়ে যে পরিবর্তন আসে মানুষের চিন্তা ও মননে তারই প্রভাব নারী স্বাধীকার আন্দোলনেও পড়ে।
যদিও নারী দিবস পৃথিবীর সবদেশে সাম্প্রতিক সময়ে ঘটা করে পালিত হচ্ছে তবুও সত্যিকার অর্থে নারীদের অধিকার রক্ষিত এখনও সম্পৃর্ণ ভাবে হয়নি। এখন অনেক বাড়িতে, অফিসে, শপিংমলে, রাস্তায়, বাসে, ট্রেনের যাত্রায়, শ্লীলতাহানি, ধর্ষণ, নারীপাচার, পণ নিয়ে শারীরিক নির্যাতন, খুন, ইত্যাদি নানান অপ্রীতিকর ঘটনা নিয়মিত ঘটছে।তাছাড়া আইনকে ফাঁকি দিয়ে নিয়মিত কণ্যা ভ্রণ হত্যার মতো অমানবিক ঘটনা খুব কম নয়।পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে নারী সুরক্ষায় আইন রয়েছে।ভারতবর্ষেও নারী সুরক্ষায় আইন রয়েছে। বর্তমান সময়ে মানবিক দৃষ্টিকোনের মাধ্যমে নারী সুরক্ষায় সচেষ্ট হওয়াই হোক নারী দিবসের অঙ্গীকার।