রবিবার, ২৫শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

NewsFile Institute
Home / Top Stories  / নির্বাচন – আজ আর সেই নির্বাচন নেই

নির্বাচন – আজ আর সেই নির্বাচন নেই

নির্বাচন আয়োজন আগে বাক্ যুদ্ধ, বক্তৃতাতে সীমাবদ্ধ ছিল কিন্তু আজকাল যেন মল্লযুদ্ধতে পরিণত হয়েছে। কিছুক্ষেত্রে মাছি মশা নিধনের মতো মানব আর মানবিকতার নিধন হচ্ছে।

ডঃ তাপসী গুপ্ত

পরিবর্তন আবহমান, পরিবর্তন আকাঙ্খিত ও প্রয়োজনীয়। কিন্তু কিছু পরিবর্তন কখনো কখনো অবাঞ্চনীয় মনে হয়। নির্বাচনেও প্রভুত পরিবর্তন হয়েছে আজকাল। নির্বাচন আজকাল জনপ্রতিনিধি চয়ন না হয়ে একটা উৎসবের পর্যায়ে পৌঁছেছে। চতূর্দিকে হৈ হৈ রৈ রৈ। সাম্প্রতিক সামাজিক মাধ্যম তো নির্বাচন কে রীতিমতো উত্তেজনার চরম শিখরে পৌঁছে দিচ্ছে।
ঘন ঘন প্রতিশ্রুতি, আধারশিলা স্থাপন, রথী মহারথীদের অহরহ দেশের বিভিন্ন জায়গায় ভ্রমন নির্বাচনের একটি বিশেষ অঙ্গ। সাধারণ মানুষ সব বোঝে, জানে তথাপি নির্বাক দর্শক ও একজন বুদ্ধিমান ভোটার। ভোটের মাধ্যমে নির্বাচনের প্রার্থীদের পরীক্ষা নিয়ে দেখে কারা কতটুকু দক্ষ ও অভিজ্ঞ নেতা। প্রলোভনের কতো পথ এরা খুলে দেয় শুধু মাত্র নির্বাচনে জেতার জন্য। নিত্য নতুন যোজনা, দরিদ্রসীমার নীম্নে যাদের অবস্থান তাদের চিন্তায় নেতাদের ঘুম নেই, মধ্যবিত্তদের প্রতি ওরা সদাই উদাসীন ও বৈমাত্রেয় সুলভ ব্যবহার।মধ্যবিত্ত রাও কিন্তু নির্বাচনে সমান তালে যোগদান করে। নির্বাচন আয়োজন আগে বাক্ যুদ্ধ, বক্তৃতাতে সীমাবদ্ধ ছিল কিন্তু আজকাল যেন মল্লযুদ্ধতে পরিণত হয়েছে। কিছুক্ষেত্রে মাছি মশা নিধনের মতো মানব আর মানবিকতার নিধন হচ্ছে।বক্তব্য প্রত্যেক নেতাদের প্রায় একই কিন্তু পরিবেশনের দক্ষতায় কেউ কেউ নায়কের পর্যায়ে পৌঁছে যায়। স্থানে স্থানে সভা, জনসমাগম, মটর সাইকেল যাত্রা, পদযাত্রা তো আছেই মন্দির মসজিদও বাদ নেই, সবাই ব্যস্ত, ভগবানের কি বিশ্রাম করা চলে? মোটেই না, এও যে নির্বাচনের একটি বিশেষ অংঙ্গ। ভগবানরা ত্রেতা, দ্বাপর যুগে কতো রাজনীতি করেছেন আর কলিতে মানুষ ভগবানদের নিয়ে রাজনীতি করার মাঝে বিন্দুমাত্র বিচিত্রতা নেই। কিন্তু ধর্মের রাজনীতিতে অধর্ম হলেই দুঃখ হয়, আর অধর্মের বলি যদি নীরিহ মানুষ হয় তাহলে আরো গ্লানি আসে।সব চাইতে লক্ষ্যণীয় বিষয় হলো বিজয়ী দলের সভ্য রা বেশীরভাগ কোন না কোন পরাজিত দলের সভ্য। অতএব দলের আদর্শ আর ব্যাক্তিগত আদর্শের একটু তালমেল থেকেই যায়। “কাল” শব্দটাই যত গোলমাল বাঁধায়, গত কাল খুব খারাপ ছিল, আজ ভালো, আগামীকাল আরও ভালো হবে যদি আজ কে প্রাধান্য দাও এটাই হলো মূল বক্তব্য। আম জনতা আগামীকালের স্বপ্ন পূরণের জন্য আজীবন মরিচীকার পিছনে দৌড়ায়।