শনিবার, ২৪শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

NewsFile Institute
Home / Big Picture Stories  / কাছাড় ক্যান্সার হাসপাতালে প্রাথমিক জরায়ু ক্যান্সার সনাক্তকরণের জন্য এইচপিভি পরীক্ষার উদ্বোধন হলো

কাছাড় ক্যান্সার হাসপাতালে প্রাথমিক জরায়ু ক্যান্সার সনাক্তকরণের জন্য এইচপিভি পরীক্ষার উদ্বোধন হলো

কাছাড় ক্যান্সার হাসপাতাল ও গবেষণা কেন্দ্রের রৌপ্যজয়ন্তী উদযাপন উপলক্ষে বুধবার "মহিলাদের স্বাস্থ্য, ক্যান্সার এবং এইচপিভি পরীক্ষা" শীর্ষক একটি কর্মসূচির আয়োজন করা হয়। আইসিএমআর স্পনসরড এইচপিভি পরীক্ষার সুবিধাযুক্ত পরীক্ষাগারের শুভ উদ্বোধন করেন কাছাড়ের জেলা উপায়ুক্ত কীর্তি জাল্লি।

শঙ্করী চৌধুরী ,

কাছাড় ক্যান্সার হাসপাতাল ও গবেষণা কেন্দ্রের রৌপ্যজয়ন্তী উদযাপন উপলক্ষে বুধবার “মহিলাদের স্বাস্থ্য, ক্যান্সার এবং এইচপিভি পরীক্ষা” শীর্ষক একটি কর্মসূচির আয়োজন করা হয়।
আইসিএমআর স্পনসরড এইচপিভি পরীক্ষার সুবিধাযুক্ত পরীক্ষাগারের শুভ উদ্বোধন করেন কাছাড়ের জেলা উপায়ুক্ত কীর্তি জাল্লি।
সার্ভিকাল ক্যান্সারের স্ক্রিনিংয়ের জন্য এইচপিভি (হিউম্যান পাপিলোমা ভাইরাস) পরীক্ষার উপকরণটি (আইসিএমআর), ভারত সরকার দ্বারা অনুমোদিত।
দিল্লি অ্যালুমিনিয়াম, শিলচরের সুনীল জৈন এবং রঙ্গিতা কোঠারি, প্রয়াত নির্মল কোঠারির স্মরনে এর নির্মান কার্যে সাহায্য করেছেন বলে এই অনুষ্ঠানে জানানো হয়।
অনুষ্ঠানে ডঃ সীতা রবি কান্নান, কাছাড় ক্যান্সার হাসপাতাল সোসাইটির সদস্যদের প্রচেষ্টা এবং তাদের কঠোর পরিশ্রমের মধ্য দিয়ে হাসপাতালের শুরুর উপর আলোকপাত করেন। হাসপাতালের পরিচালক ডাঃ আর রবি কান্নান, জেলা উপায়ুক্ত কীর্তি জাল্লি সহ উপস্থিত অতিথিদের স্বাগত জানিয়ে হাসপাতালের দর্শন এবং নারীর স্বাস্থ্য কতটা গুরুত্বপূর্ণ তা বিস্তারিতভাবে আলোচনা করেন। অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখতে গিয়ে উপায়ুক্ত কীর্তি জাল্লি ২৫ তম বার্ষিকী উপলক্ষে কাছাড় ক্যান্সার হাসপাতালের সকল ডাক্তার এবং কর্মীদের অভিনন্দন জানান। তিনি বলেন, ভারতে অনুদানের একটি প্রবণতা রয়েছে অনেক ক্ষেত্রে তাই আরও বেশি লোককে কেবল অর্থ অনুদানের মাধ্যমে নয় তাদের ক্যান্সার আক্রান্তদের পরিবারকেও সহায়তা করতে এগিয়ে আসা উচিত। তিনি বলেন সমাজে মহিলাদের পরিবারের পিছিয়ে রাখার এক প্রবণতা রয়েছে তাই তিনি মহিলাদের জন্য প্রাথমিক এইচপিভি পরীক্ষার উপর গুরুত্ব আরোপ করেন। জরায়ুর ক্যান্সার প্রতিরোধযোগ্য এবং প্রাথমিক স্ক্রিনিং এটির সাথে লড়াই করতে সহায়তা করে বলে তিনি উল্লেখ করেন এবং তিনি মহিলাদের তাদের পরীক্ষা করানোর জন্য অনুরোধ করেন। এছাড়া
প্রাসঙ্গিক বক্তব্য রাখেন রঙ্গিতা কোঠারি, সিসিএইচএসের সেক্রেটারি নীলমাধব দাস প্রমুখ। উদ্বোধনের পরে, গবেষণা বিভাগের প্রধান ডঃ রাজীব কুমার এইচপিভি পরীক্ষার যন্ত্রটির সংক্ষিপ্ত বিবরন তুলে ধরেন (হাইব্রিড ক্যাপচার, ইউএসএফডিএ অনুমোদিত)।
এখানে উল্লেখ্য যে হাসপাতালটি ৯৯৯, / – টাকার ভর্তুকি ব্যয়ে এই পরীক্ষার সুবিধা প্রদান করছে । দীর্ঘমেয়াদী উচ্চ ঝুঁকিযুক্ত এইচপিভি সংক্রমণ মহিলাদের জরায়ু ক্যান্সারের জন্য দায়ী। ২৫ থেকে ৬৫ বছর বয়সের মহিলাদের মধ্যে এই এইচপিভি পরীক্ষার পরামর্শ দেওয়া হয়। এই পরীক্ষাটি ৫ বছরে একবার করা উচিত। ডাঃ পৌলমী মুখোপাধ্যায়, কনসাল্টেন্ট সার্জিকাল অনকোলজিস্ট, মহিলাদের জন্য সুস্বাস্থ্যের জন্য স্ব-স্ক্রিনিং এবং সচেতনতার ভূমিকা সম্পর্কে বক্তব্যে তুলে ধরেন।