বৃহস্পতিবার, ৫ই আগস্ট, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

NewsFile Institute
Home / Big Picture Stories  / শরীরের বিভিন্ন রোগের নিবারণে তিলের ব্যবহার

শরীরের বিভিন্ন রোগের নিবারণে তিলের ব্যবহার

তিল ত্বকের পক্ষে খুবই উপকারী । প্রতিদিন তিল তেল মালিশ করলে ব্যক্তি কখনো অসুস্থ হয় না।

অনুরণ ভট্টাচার্য

তিল ত্বকের পক্ষে খুবই উপকারী । প্রতিদিন তিল তেল মালিশ করলে ব্যক্তি কখনো অসুস্থ হয় না। তিল তেলের মালিশ করলে রক্ত বিকার, অঙ্গমর্দন , বাত ব্যেধি মত সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। তিলের সেবনে জঠরাগ্নি প্রদীপ্ত হয়। মেধা শক্তি বৃদ্ধি পায় এর ফলে বুদ্ধি, স্মরণশক্তি এবং গ্রহণ শক্তি বাড়ে। তিল আর তিশির ক্বাথ পান করলে পুরুষার্থ বৃদ্ধি পায়।

চলুন দেখে নেওয়া যাক তিলের আরো কিছু ব্যবহার

দাঁত
তিল দাঁতের পক্ষে খুবই উপকারী। প্রতিদিন 25 গ্রাম তিল চিবিয়ে খেলে দাঁত মজবুত হয়, তাছাড়া মুখের মধ্যে 5 থেকে 10 মিনিট রেখে দিলে পায়রিয়ার সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব।

অর্শ
অর্শ রোগীদের তিলকে পিসে মাখনের সঙ্গে মিশিয়ে চেটে খেলে ভিশন লাভ হয়। রক্ত বেরোনোও বন্ধ হয়ে যায়।

নেত্র রোগ
তিলের ফুলের ওপরে শরৎ ঋতুতে পড়া শিশির কে মখমলের কাপড় বা অন্য কোন প্রকারে তুলে শিশিতে ভরে নিন এই শিশির কণা কে চোখে দিলে চোখের সব প্রকার রোগেই উপকৃত হওয়া যায়।
তবে সেক্ষেত্রে পরিষ্কার ফুল থেকেই জল সংগ্রহ করা উচিত।

কাটা বিঁধলে
শরীরের কোন জায়গায় নাগফনি বা কোন ধরনের কাটা বিঁধলে তা যদি বের করতে না পারেন তাহলে সেই জায়গায় বার-বার করে তিল তেল লাগালে কিছুক্ষণের মধ্যে খুব সহজেই কাটা বেরিয়ে আসে।

সন্ধিবাত বা গেঁটেবাত বাতের রোগীরা তিল এবং শুকনো আদা সমান মাত্রায় নিয়ে প্রতিদিন 5-5 গ্রাম দিনে তিন থেকে চার বার সেবন করা উচিত।

ফোলা
তিল আর মাখন একসঙ্গে পিসি মালিশ করলে ফোলা ভাব দূর হয়।

রক্ত অতিসার
তিলের চূর্ণ এবং সমান মাত্রায় মিছিরি মিশিয়ে তার চারগুন মাত্রায় ছাগলের দুধের সঙ্গে সেবন করলে রক্ত অতিসারে লাভ হয়।

বাচ্চাদের মূত্ররোগ
রাতের বেলায় বিছানায় যে সব বাচ্চারা প্রস্রাব করে ফেলে তাদের জন্য তিলের সেবন খুবই লাভকারী হয় । নিয়মিত তেলের সেবনে মূত্র রোগের অবসান ঘটে।

তিলের নিত্য ব্যবহার আমাদের শারীরিক আরো বিভিন্ন সমস্যার সমাধান ঘটিয়ে থাকে, তাই নিয়মিত তিল খাওয়া আমাদের প্রত্যেকের জন্যই খুব উপকারী।