বৃহস্পতিবার, ৫ই আগস্ট, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

NewsFile Institute
Home / Big Picture Stories  / বাংলার বেকারদের সুদিন কি ফিরবে

বাংলার বেকারদের সুদিন কি ফিরবে

শিক্ষা হল একটি জাতির মেরুদণ্ড। শিক্ষিত যুবকরা দেশের ভবিষ্যৎ ।

মিঠুলাল চৌধুরী

শিক্ষা হল একটি জাতির মেরুদণ্ড। শিক্ষিত যুবকরা দেশের ভবিষ্যৎ । আর শিক্ষিত জাতি একটি উন্নত দেশ গড়ার কারিগর হয়ে উঠে। একটি দেশ উন্নত ও প্রগতিশীল হয়ে উঠবে , এটা আমরা সবাই চাই। সেই দেশে শিক্ষিত বেকার যুবকেরা ব্যবসা বা চাকরি করবেন এটাই সত্য। কিন্তু পশ্চিমবঙ্গে উলটো পুরাণ , বঙ্গের যুবক যুবতীরা রাজ্যে ব্যবসা বা চাকুরি করতে না পেরে পরিযায়ী শ্রমিক হয়েছেন । কিন্তু রাজ্যে বহিরাগতদের চলছে দেদার সমাগম। তাহলে কি রাজনীতির স্বার্থে রাজনৈতিক দল গুলো বঙ্গে বহিরাগতদের ভিড় বাড়িয়েছে । পশ্চিমবঙ্গে ভুমিপুত্রদের জন্য কোন সংরক্ষণ ও নেই। বঙ্গের গল্প কিন্তু অনেক দিনের, ৩৪ বছরের বাম আমলে দিনদিন বেকারের সংখ্যা বেড়েছে । এদিকে এক শ্রেণীর রাজনৈতিক দলের ঝান্ডাধারীরা দিব্যি চাকুরি পেয়েছে ।
এবং সেই সাথে রাজ্যের কলকারখানা ও বন্ধ হচ্ছিল , এরপর আর বাংলার জনগন সি পি এমের উপর ভরসা রাখতে পারেননি । আওয়াজ উঠে পরিবর্তনের এবং পরিবর্তন ও হয় । বর্তমানের তৃণমূল কংগ্রেস সরকার বিগত প্রায় ১০ বছর ধরে রাজ্যে নৈরাজ্যের হাওয়া তৈরি করে রেখেছে। সরকার শাষনে এসে প্রথমেই শিক্ষিত বেকারদের কোমর ভেঙ্গে দিয়েছে। সেইসাথে রাজ্যে চলেছে দুর্নীতি এবং সিন্ডিকেটের বাজার । জনগনের অভিযোগ রাজ্যে যোগ্য প্রার্থীদের সাথে সরকার বেইমানি করেছে, চাকুরির প্রতিশ্রুতি দিয়ে ও কথা রাখেনি। বেকারদের সাথে খেলা হয়েছে নোংরা রাজনীতির খেলা। যোগ্য প্রার্থীরা চাকুরি থেকে বঞ্চিত হয়েছেন । অথচ তৃণমূল কংগ্রেস সরকার ইতিমধ্যে বিভিন্ন বিভাগে বহু প্রার্থীদের নিয়োগ করেছে । যাদের মধ্যে অনেকেরই নাকি মেধা তালিকায় নাম ছিল না ।
বর্তমানে এই বেকার সমস্যাকে ইস্যু করে বিজেপি জনগণকে আশস্ত করেছে, ক্ষমতায় এলে তারা অবশ্যই বঞ্চিত বেকার যুবক ও যুবতীর জন্য রাজ্যে চাকুরির ব্যবস্থা কর