শনিবার, ২৪শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

NewsFile Institute
Home / Big Picture Stories  / করিমগঞ্জের ১৩৩ কেবি বিদ্যুৎ সাব সেন্টার উদ্বোধন করতে আসছেন মুখ্যমন্ত্রী

করিমগঞ্জের ১৩৩ কেবি বিদ্যুৎ সাব সেন্টার উদ্বোধন করতে আসছেন মুখ্যমন্ত্রী

নির্বাচনী আচরণবিধি শুরু হওয়ার আগেই গণদাবি গুলো পূরণ করতে উঠে পড়ে লেগেছে সর্বানন্দ সোনোয়াল নেতৃত্বাধীন বিজেপি জোট সরকার।

অরুপ রায়,
করিমগঞ্জ, ফেব্রুয়ারি ১৫,

নির্বাচনী আচরণবিধি শুরু হওয়ার আগেই গণদাবি গুলো পূরণ করতে উঠে পড়ে লেগেছে সর্বানন্দ সোনোয়াল নেতৃত্বাধীন বিজেপি জোট সরকার। প্রতিদিন রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে একাধিক প্রকল্পের উদ্বোধন করছেন মুখ্যমন্ত্রী স্বয়ং। এমনকি সরকারের পক্ষ থেকে বিভিন্ন জনমুখি প্রকল্প ঘোষণা করা হচ্ছে। খুব শীঘ্রই করিমগঞ্জের বিদ্যুৎ সমস্যা সমাধানের উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। এ ব্যাপারে প্যাটেল নগরস্থিত ১৩২/৩৩ কেভি সাবস্টেশনে বিভাগীয় আধিকারিকদের নিয়ে সাংবাদিক সম্মেলন করে বিস্তারিত তুলে ধরেন এপিজিসিএল এর ডিরেক্টর নিত্য ভূষণ দে। তিনি বলেন, বিগত সরকারের দূরদৃষ্টির অভাবে করিমগঞ্জ বাসীকে বিদ্যুতের সমস্যায় ভুগতে হয়েছে। বর্তমান সরকার দায়িত্ব নেওয়ার পরই জেলার বিদ্যুৎ সমস্যা সমাধানের জন্য তদ্ধির শুরু করেছিল। দীর্ঘ প্রতীক্ষার পর করিমগঞ্জ বাসীর বিদ্যুৎ সমস্যা সমাধান হতে যাচ্ছে বলে জানান নিত্যবাবু। বলেন,১৫ ফেব্রুয়ারি মুখ্যমন্ত্রী এই সাব-স্টেশন উদ্বোধন করার কথা ছিল। কিন্তু তার ব্যস্ততার জন্য সেটা সম্ভব হয়নি। তবে ১৮ ফেব্রুয়ারি মুখ্যমন্ত্রী স্বয়ং উপস্থিত হয়ে এইসব স্টেশন উদ্বোধন করে করিমগঞ্জের গণদাবি পূরণ করবেন।যদি মুখ্যমন্ত্রী উপস্থিত হতে না পারেন তখন বিভাগীয় তরফ থেকে উদ্বোধন করা হবে। নিত্যবাবু জানান,২৪ ঘণ্টা বিদ্যুতের প্রতিশ্রুতি দিয়ে প্রথমবারের মতো রাজ্যের শাসন ক্ষমতা দখল করল বিজেপি সরকার। এরপর সরকারের পক্ষ থেকে ভি কে পিপারসনিয়াকে বরাকে পাঠানো হয় বিভিন্ন সমস্যাগুলো খতিয়ে দেখার জন্য। করিমগঞ্জের বিদ্যুৎ সমস্যা নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীকে অবগত করান রাজ্যের তৎকালীন মুখ্যসচিব ভি কে পিপারসনিয়া। বিভাগীয় বাস্তকার জ্যোতির্ময় দাস বলেন, করিমগঞ্জের জন্য প্রয়োজন ৩৭ মেগাওয়াট।এ সাব স্টেশনে ৫০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ সংরক্ষণ করে রাখার ব্যবস্থা আছে।পালাটানা বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্র থেকে সরাসরি বিদ্যুৎ পৌঁছবে প্যাটেলনগরে। প্রতিদিন তিন জন করে কর্মচারী আট ঘণ্টা করে ডিউটি দেবেন। খুব শীঘ্রই নতুন করে আরো কর্মচারীর নিযুক্তি দেওয়া হবে বলে জানান বিভাগীয় বাস্তুকার। তিনি বলেন,পাঁচগ্রাম থেকে জাতীয় সড়কের উপর দিয়ে লাইন টানার কাজ ও প্রায় শেষ হয়ে গেছে। এখন থেকে মেইন নেই, লোডশেডিং চলছে এসব কথা শুনতে হবে না বলে আশ্বাস দেন বিভাগীয় বাস্তকার। সাংবাদিক সম্মেলনে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন প্রজ্ঞান শইকিয়া, জয়ন্ত মঙ্গল বড়ুয়া, পৃথ্বীশ রায় চৌধুরী, নারায়ণ শর্মা প্রমুখ।