মঙ্গলবার, ২৭শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

NewsFile Institute
Home / Big Picture Stories  / বরাক উপত্যকা বঙ্গ সাহিত্য ও সংস্কৃতি সম্মেলনকে অনুদান দেবার সরকারি সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানালো বরাক ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট

বরাক উপত্যকা বঙ্গ সাহিত্য ও সংস্কৃতি সম্মেলনকে অনুদান দেবার সরকারি সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানালো বরাক ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট

শঙ্করী চৌধুরীহাইলাকান্দি, বরাক ব্রহ্মপুত্র সমন্বয়ের কথা রাজ্য সরকার বারবার বলে এসেছে। কয়েকদিন আগে গৌহাটিতে বরাক উপত্যকা বঙ্গ সাহিত্য ও সংস্কৃতি সম্মেলনের কর্মকর্তাদের সাথে সাক্ষাৎ করে ' আসাম ভাষা গৌরব' প্রকল্পের অধীনে উক্ত সংগঠনকে আর্থিক অনুদান দেবার

শঙ্করী চৌধুরী
হাইলাকান্দি
,

বরাক ব্রহ্মপুত্র সমন্বয়ের কথা রাজ্য সরকার বারবার বলে এসেছে। কয়েকদিন আগে গৌহাটিতে বরাক উপত্যকা বঙ্গ সাহিত্য ও সংস্কৃতি সম্মেলনের কর্মকর্তাদের সাথে সাক্ষাৎ করে ‘ আসাম ভাষা গৌরব’ প্রকল্পের অধীনে উক্ত সংগঠনকে আর্থিক অনুদান দেবার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন খোদ মূখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সোনোয়াল। সরকারের এই সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন বরাক ডেমোক্রেটিক ফ্রন্টের মূখ্য আহ্বায়ক তথা আকসার প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি প্রদীপ দত্ত রায়। তিনি জানান যে যদিও ইচ্ছে থাকলে সরকার পক্ষ এই কাজটি প্রথমেই করতে পারতেন তবুও দেরীতে হলেও এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে এবং কোন আবেদন নিবেদন ছাড়াই বরাক বঙ্গকে যে এই অনুদান দেওয়া হচ্ছে এজন্য তিনি সরকারকে ধন্যবাদ জানান। অবশ্য পাশাপাশি তিনি এও বলেন যে বরাক ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট থেকে শুরু করে আরো কিছু সংগঠন ও ব্যাক্তিবর্গ সরব না হলে হয়তো সরকার এই পদক্ষেপ নিতো না। এই সম্মিলিত চাপ এবং সামনে নির্বাচন রয়েছে বলেই হয়তো শাসকদলের সাংসদ , বিধায়করা এই ব্যাপারটির তদ্বির করতে বাধ্য হয়েছেন। তিনি আরো জানান গত কয়েক দশকের নির্যাতন , বৈষম্যের ফলে এই রাজ্যের বাঙালিদের মনমানসে ক্ষতের সৃষ্টি হয়েছে এবং তা প্রশমিত করতে সরকারকে আরও আন্তরিক হয়ে শুধু বরাক বঙ্গকে অনুদান দিয়েই সরকারের দায়িত্ব শেষ না করে বরাকের বাঙালির বিকাশে কাজ করে যেতে হবে বলে তিনি মত ব্যক্ত করেন।সরকার অবিলম্বে বাংলা ভাষাকে সরকারি সহযোগী ভাষার মান্যতা দেওয়া ও পঞ্চদশ ভাষা শহীদকে সরকারি স্বীকৃতি দেওয়ার দাবি জানান। বিডিএফ এর মুখ্য আহ্বায়ক বলেন মূখ্যমন্ত্রী বরাকে এসে ভাষা শহীদ স্মারক স্থাপনের যে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন তা আগামী নির্বাচনের আগে বাস্তবায়নের ও শিলচর রেলস্টেশনকে অবিলম্বে ‘ভাষা শহীদ স্টেশন’ নামকরণ করতে উদ্যোগী হতে সরকারের কাছে দাবি জানান।